Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০২ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী

জাবির সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনে দিনগণনা শুরু

জাবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ নভেম্বর, ২০২০, ৩:৪৯ পিএম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনে দিনগণনা শুরু হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়ায় কাউন্টডাউন ঘড়ি স্থাপন করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়টি ১৯৭০ সালে জাহাঙ্গীরনগর মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় নামে প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৭৩ সালে এটির নতুন নামকরণ করা হয় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। ঢাকা শহরের মুঘল আমলের নাম ‘জাহাঙ্গীরনগর’ থেকে এই নামকরণ করা হয়। বাংলাদেশের প্রথম নৃবিজ্ঞান ও ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগ প্রতিষ্ঠিত হয় এই বিশ্ববিদ্যালয়ে। বাংলাদেশের একমাত্র প্রত্নতত্ত্ব বিভাগও এই বিশ্ববিদ্যালয়ে। শুরুতে দুইটি অনুষদ নিয়ে যাত্রা করলেও পরের বছর কলা ও মানবিকী অনুষদ খোলা হয়। প্রথম ব্যাচে ১৫০ জন ছাত্র নিয়ে ৪ টি বিভাগ চালু হয়; বিভাগগুলো হচ্ছে অর্থনীতি, ভূগোল, গণিত এবং পরিসংখ্যান।

মঙ্গলবার (২৪ই নভেম্বর) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের আয়োজনে অনলাইন মাধ্যম (জুম মিটিংয়ের) সাহায্যে দিনগণনার উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম।

ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহামদ আলমগীর কবীর সুবর্ণ জয়ন্তীর কাউন্টডাউন অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।

অনলাইন অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী ভাষণে উপাচার্য বলেন, ‘আমাদের আশা ছিলো আমরা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠান খুবই আড়ম্বরে পালন করবো। কিন্তু করোনাকালীন দুঃসময়ের কারণে আমরা হয়তো সেভাবে তা করতে পারবো না। তবুও আমরা আগামী ১২ জানুয়ারি প্রতিষ্ঠা দিবসে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ বছরের সুবর্ণ অর্জনের ইতিহাস ও ঐতিহ্য আন্তরিকভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করবো। সেই অনুষ্ঠানে আমাদের প্রাণের পরশ থাকবে। আজকের বাস্তবতায় শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে নেই। এই ধরনের বিপুল আয়োজন তাদের ছাড়া প্রাণহীন হয়ে যায়। আমরা এ কথা বিবেচনায় রেখে অনুষ্ঠানের আয়োজন করবো।’

নান্দনিক সৌন্দ্যর্যের আধার খ্যাত ক্যাম্পসটি ঢাকার অদূরে সাভার এলাকায় ৬৯৭.৫৬ একর জায়গা নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি অবস্থিত। ১৯৭০ সালে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হলেও সম্পূর্ণরূপে এর কার্যক্রম শুরু হয় ১৯৭২ সালে।

১৯৭১ সালের ১২ জানুয়ারি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় উদ্বোধন করেন। তার আগে ১৯৭০ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য নিযুক্ত হন অধ্যাপক মফিজ উদ্দিন। পরবর্তীতে বিভিন্ন সময় এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন প্রখ্যাত কবি সৈয়দ আলী আহসান, লোকসাহিত্যবিদ মজহারুল ইসলাম, লেখক জিল্লুর রহমান সিদ্দিকী, আ ফ ম কামালউদ্দিন, আমিরুল ইসলাম চৌধুরী, অর্থনীতিবিদ আব্দুল বায়েস, আলাউদ্দিন আহমেদ, খন্দকার মুস্তাহিদুর রহমান প্রমুখ ।

এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন অধ্যাপক সুনীল কুমার মুখোপাধ্যায়, লেখক হায়াত্‍ মামুদ, লেখক হুমায়ুন আজাদ, নাট্যকার সেলিম আল দীন, কবি মোহাম্মদ রফিক (সদ্য অবসরপ্রাপ্ত), অধ্যাপক মুস্তাফা নূরুল ইসলাম, আবু রুশদ মতিনউদ্দিন, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী দিলারা চৌধুরী, ইতিহাসবিদ বজলুর রহমান খান, অর্থনীতিবিদ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব আনু মুহাম্মদ প্রমুখ।

দিনগণনার অনলাইন অনুষ্ঠানে (জুম মিটিংয়ে) আরো উপস্থিত ছিলেন প্রো-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মো. আমির হোসেন, প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম, বিভিন্ন অনুষদের ডীন, প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি, সিনেট-সিন্ডিকেটের সদস্যবৃন্দ, রেজিস্ট্রার, হল প্রভোস্ট, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তাবৃন্দ।জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের একটি অন্যতম এবং একমাত্র পূর্ণাঙ্গ আবাসিক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়।

বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে কলা ও মানবিকী, গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক, সমাজ বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও আইন অনুষদ এবং ৪ টি ইনস্টিটিউট রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন