Inqilab Logo

সোমবার, ০২ আগস্ট ২০২১, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮, ২২ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

ফেসবুকের কল্যাণে খুঁজে পেল ঠিকানা

রিয়ামনিকে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

ফেসবুক পোস্টের সূত্র ধরে অবশেষে ঠিকানা খুঁজে পেল ময়মনসিংহের ফুলপুর প্রশাসনের হেফাজতে থাকা শিশু রিয়ামনি (৮)। পাশের তারাকান্দা উপজেলার গালাগাও ইউনিয়নের কলহরী (ইটখোলা) গ্রামে রিয়ামনির নানা বাড়ি। রিয়ামনির নানা রমজান আলী ও নানি রহিমা খাতুনকে চিনতে পারে সে। অপরদিকে নানা-নানিও তাদের নাতনিকে চিনতে পারেন। অবশেষে গত সোমবার রাতে আনুষ্ঠানিকতা সেরে শিশুটিকে তার নানা-নানির কাছে যখন হস্তান্তর করা হয়, তখন এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

ফুলপুর পুরাতন কোর্ট বিল্ডিং এর সামনে গত সোমবার সকাল ৮টায় রিয়ামনিকে রাসেল নামে এক ব্যক্তি ফেলে রেখে যায়। পরে সংবাদ পেয়ে ফুলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শীতেষ চন্দ্র সরকার শিশুটিকে উদ্ধার করে নিজ কার্যালয়ে নিয়ে আসেন এবং খাবারসহ নতুন জামা-কাপড় ও শীতের গরম কাপড় কিনে দেন। সেই সাথে শিশুটির পরিবারের কাছে ফেরানোর চেষ্টা চালিয়ে যান। এরই মাঝে উপজেলা প্রশাসন ও সাংবাদিকসহ অনেকেই শিশুর পরিবারের খোঁজে ফেসবুকে পোস্ট দেন। সন্ধ্যা পর্যন্ত কন্যা শিশুর কোন গার্ডিয়ান কিংবা কোন নিকটাত্মীয়ের সন্ধান না পাওয়ায় পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ফুলপুর থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। অবশেষে ফেজবুকের পোস্ট রিয়ামনির পরিবারের নজরের আসে। ফেসবুক পোস্টের সূত্র ধরে শিশুটির নানা-নানি তাকে চিনতে পেরে রাতে ফুলপুর থানায় আসেন এবং শিশুটিকে সনাক্ত করেন। সেই সাথে তার প্রকৃত নাম মিম আক্তার বলে জানায়।

রিয়ামনির নানি রহিমা খাতুন ও নানা রমজান আলী জানান, প্রায় ২ বছর আগে মেয়েটি তার খালার ঢাকার পোস্তগোলার বাসা থেকে হারিয়ে যায়। অনেক খোঁজাখুজি করেও কোন সন্ধান না পেয়ে তারা আশা হারিয়ে ফেলেছিল। অবশেষে ফেসবুকের কল্যাণে হারিয়ে যাওয়া রিয়ামনিকে পাওয়া গেল। আনুষ্ঠানিকতা সেরে মেয়েটিকে তার নানা-নানির কাছে রাতেই হস্তান্তর করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন