Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৫ আষাঢ় ১৪২৮, ০৭ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

অকাল গর্ভপাতের শিকার হয়েছিলেন মেগান মার্কেল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

যে কোন নারীর জন্যই অকাল গর্ভপাতের ঘটনা অসহনীয় দুঃখের। সেই দুঃখই সহ্য করতে হয়েছিল প্রিন্স হ্যারির স্ত্রী ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেলকে। চলতি বছরের জুলাই মাসে তার অকাল গর্ভপাত হয়েছিল বলে মেগান নিজেই জানিয়েছেন। গতকাল নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত ‘দ্য লসেস উই শেয়ার› শীর্ষক’ একটি লেখায় গর্ভপাতের বিষয়টি প্রকাশ করেন তিনি। এসময় তিনি গর্ভপাতের শিকার হওয়াদের প্রতি সমবেদনা জানানোর আহ্বান জানান।

নিউইয়র্ক টাইমসের জন্য লেখা ওই অনুচ্ছেদে মেগান লিখেছেন, ‘আমি জানতাম, আমার প্রথম সন্তানকে যেমন আঁকড়ে ধরেছি, তেমনি আমি আমার দ্বিতীয় সন্তানকে হারাতে চলেছি।’ গত বছরের ৬ মে প্রথম সন্তান জন্ম নেয় মেগান ও ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারির। তারা সন্তানের নাম রেখেছেন আর্চি। মেগান লিখেছেন, ‘২০২০ সাল আমাদের প্রত্যেককে হারানোর বেদনা ছুঁয়ে গেছে।’ তিনি বলেন, ‘চলতি বছরের জুলাই মাসের এক সকালে তিনি ব্যাপক খিঁচুনি অনুভব করেন। কয়েক ঘণ্টা পরই হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে তার স্বামীর হৃদয় ভেঙে যেতে দেখেন।’ মেগান বলেন, ‘প্রিন্স হ্যারি ওই সময় আমারই ছিঁড়ে যাওয়া একটি টুকরো ধরে ছিলেন।’ তিনি বলেন, ‘পরে আমার যখন জ্ঞান ফিরল আমি দেখলাম আমি হাসপাতালের বেডে। আমার পাশে ছিল হ্যারি। সে আমার হাতে চুমু খাচ্ছিল। আমি লক্ষ করলাম তার দুচোখ জলে ভেজা। তখন আমরা দুজনেই এর থেকে কিভাবে বেরিয়ে আসতে পারি সে পথ খুঁজছিলাম।’

৩৯ বছর বয়সী মেগান তার অভিজ্ঞতা তুলে ধরে মানুষের কাছে এই থ্যাংকস গিভিংয়ের ছুটিতে অন্যদের খোঁজখবর নেয়ার আহ্বান জানান। চলতি বছরের মার্চ মাসে রাজপরিবার ছাড়েন হ্যারি-মেগান দম্পতি। এরপর থেকেই গণমাধ্যমের দৃষ্টির আড়ালে গিয়ে লস অ্যাঞ্জেলসে বসবাস করছেন তারা। সূত্র : নিউইয়র্ক টাইমস।



 

Show all comments
  • রোমান ২৬ নভেম্বর, ২০২০, ২:৩৪ এএম says : 0
    এটাও জীবনের অংশ
    Total Reply(0) Reply
  • Jack Ali ২৬ নভেম্বর, ২০২০, ১২:১৮ পিএম says : 0
    I request Inqilab news paper not to publish this sort of news. In Islam we are not allow to waste a second in vain things.
    Total Reply(1) Reply
    • Abul Kashem ১ মার্চ, ২০২১, ৬:৩৬ পিএম says : 0
      Right you are. I do agree with you.But Inquilab is no longer the same one as before. ...

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রিন্স হ্যারি


আরও
আরও পড়ুন