Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭, ১৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

বিশ্বে প্রতিবছর পানিতে ডুবে প্রতি ৮০ সেকেন্ডে একটি শিশুর মৃত্যু হয় : ডব্লিউএইচও

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ নভেম্বর, ২০২০, ৩:৫০ পিএম

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা ডব্লিউএইচও জানিয়েছে, পানিতে ডুবে বিশ্বে প্রতি ৮০ সেকেন্ডে একজন শিশুর মৃত্যু হয়। জাতিসংঘের স্বাস্থ্য বিষয়ক এই সংস্থাটি বলছে, বিশ্বে প্রতিবছর পানিতে ডুবে ৩ লাখ ৭২ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়।

ডব্লিউএইচও বলছে, পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যুর ঘটনা সবচেয়ে বেশি এশিয়াতে। বিশেষ করে দক্ষিণ এশিয়ার নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশে ৯১ শতাংশ শিশু মারা যায়। এসব দেশের মানুষ তাদের দৈনন্দিন কাজে যেমন- পানি সংগ্রহ, গোসল করা, মাছ ধরা বা খেলা করা ইত্যাদিতে উন্মুক্ত জলাশয়ের পানি ব্যবহার করে যা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।

এছাড়া ১৪ বয়সের নিচে ৪০ শতাংশ শিশু মারা যায়। বিশ্বে বয়স্কদের চাইতে ১৮ বয়সের নিচে শিশুরা তিনগুণ বেশি পানিতে ডুবে মারা যায় বলেও জানাচ্ছে সংস্থাটি।
ব্লুমবার্গ ফিলানথ্রপিস, জন হপকিন্স ইন্টারন্যাশনাল ইনজুরি রিসার্চ ইউনিট জানায়, বিশ্বের সব দেশের শিশু মৃত্যুর একটি অন্যতম বড় কারণ পানিতে ডুবে মৃত্যু। বিশ্বজুড়ে এক বছর থেকে চার বছরের শিশুরা বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে, তারপর পাঁচ থেকে নয় বছরের শিশুরা। এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অথচ অবহেলিত জনস্বাস্থ্য সমস্যা।
প্রতিকার হিসেবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, বিশ্বে যদি জলাশয় উন্মুক্ত না রেখে তা সুরক্ষিত রাখা যায় তাহলে ৭৫ শতাংশ শিশুর জীবন বাঁচানো সম্ভব। এছাড়াও শিশুকে সার্বক্ষণিক নজরদারির মধ্যে রাখলে এ দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব।

এছাড়াও অভিভাবকদের সচেতনা বৃদ্ধি, সামাজিক সচেতনা বৃদ্ধি, শিশুদের সুরক্ষায় ডে কেয়ার স্থাপন, সাঁতার শিখানো, বাড়িতে শিশু বেষ্টনী তৈরির মাধ্যমে পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যুর ঘটনা অনেকটাই কমিয়ে আনা সম্ভব।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাবেক মহাপরিচালক ড. মার্গারেট চ্যান বলেন, পানিতে ডুবার তথ্য এবং ডুবে যাওয়া প্রতিরোধ ব্যবস্থাগুলো এখনও অনেকটাই অজানা। এ বিষয়ে গবেষণা চলছে। তবে কালক্ষেপণ না করে এ যাবৎকালে যে সমস্ত প্রতিরোধ ব্যবস্থা গবেষণা দ্বারা প্রমাণিত হয়েছে তা জরুরী ভিত্তিতে কাজে লাগিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর পানিতে ডুবা প্রতিরোধের কর্মকৌশল তৈরি করতে হবে। সূত্র : রয়টার্স



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডব্লিউএইচও


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ