Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

সব বাঁধা উপেক্ষা করে অবশেষে দিল্লিতে প্রবেশ করেছে বিক্ষোভকারী কৃষকরা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৩০ পিএম

ভারতে পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষের পর করোনার ব্যাপক প্রকোপ সত্ত্বেও দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মার্চ করে রাজধানীতে ঢুকেছে হাজার হাজার কৃষক। কৃষি বিষয়ক নতুন আইনের প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ বিক্ষোভ। কৃষকদের দাবি, নতুন এ আইনের ফলে ফসলের ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হবেন তারা। খবর আল জাজিরার।
এর আগে দিল্লীর প্রবেশমুখে বিভিন্ন জায়গায় পুলিশের সাথে কৃষকদের সংঘর্ষ হয়। টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গও করে দেয়া হয়। কিন্তু পুনরায় সংগঠিত হয়ে দিল্লী অভিমুখে মার্চ করতে থাকলে কৃষকদের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের অনুমতি দেয় পুলিশ।
বিক্ষোভরত কৃষকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বাধা দিয়ে তাদের এ আন্দোলনকে বিঘ্নিত করা যাবে না। দেশটির সংযুক্ত কিষাণ মোর্চা বিবৃতিতে জানিয়েছে, ৫০ হাজারেরও বেশি কৃষক দিল্লি অবস্থান গ্রহণ করবেন। এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। দেশের বিভিন্ন রাজ্য থেকে কৃষকেরা গাড়ি, ট্র্যাক্টর, লরি, জিপসহ বিভিন্ন যানবাহনের মাধ্যমে রাজধানীতে পৌঁছেছেন।
কৃষকদের অভিযোগ, নতুন তিনটি আইন পাসের মধ্য দিয়ে কৃষকদের ধান ও গমের ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত করছে সরকার। দেশের কৃষি ব্যবস্থাকে করপোরেটদের হাতে তুলে দেয়ার অভিযোগ করেন কৃষক সংগঠনের নেতারা।
বিক্ষোভকারী কৃষক সুক্রামপাল ধায়ানা ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘পুলিশ জোর করে আমাদেরকে থামানোর চেষ্টা করেছে, ব্যারিকেড দিয়েছে, জলক্মাান ছুড়েছে। তারপরও সরকার যেন লাখ লাখ কৃষকের কণ্ঠস্বর শুনতে পায়, তা নিশ্চিত করার জন্য আমরা আমাদের কর্মসূচি চালিয়ে যাব।’
শুক্রবার সকাল থেকে শক্তি প্রয়োগ করার পর অবশেষে দুপুরে সংঘর্ষের পথ থেকে সরে আসে পুলিশ। কৃষি বিল বাতিলের দাবিতে আন্দোলনকারী কৃষকদের দিল্লিতে ঢুকতে অনুমতি দেয় পুলিশ। নয়াদিল্লির বুরারি এলাকায় নিরঙ্করী সমাগম মাঠে প্রতিবাদ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে কৃষকদের। কিন্তু তারা বুরারির নিরঙ্করী ময়দানে বসতে রাজি হননি। এখন তারা সিঙ্গু সীমানাতেই বিক্ষোভ করছেন। সূত্র : আল জাজিরা, এনডিটিভি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ