Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ০৫ মাঘ ১৪২৭, ০৫ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

ম্যারাডোনার লাশের সঙ্গে ছবি তুলে ছাঁটাই কর্মী

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

বিশ্বজোড়া কত কোটি মানুষই তো চিনতেন ম্যারাডোনাকে। ফুটবলপ্রিয় মানুষের কাছে তিনি ছিলেন আপনজন। ছিলেন প্রিয়মুখ। প্রিয় এই মানুষটিকে প্রায় সবাই দ‚র থেকেই দেখে গেছে, ভালোবেসে গেছে। ম্যারাডোনার পায়ের জাদু আর খামখেয়ালিপনা দেখে কত মানুষেরই মনে হয়েছে, ‘ইশ্, লোকটার পাশে দাঁড়িয়ে যদি একটা ছবি তুলতে পারতাম!’

হয়তো দিয়েগো মোলিনাও ওসব মানুষের মধ্যে একজন। আজীবন ম্যারাডোনার সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছেন, চেয়েছেন কিংবদন্তির সঙ্গে ছবি তুলে মনের মণিকোঠায় এক অমর স্মৃতি নিয়ে বেঁচে থাকতে। কিংবা হয়তো এমনও হতে পারে, তিনি খেলাটেলা অতটা দেখেন না। কিন্তু ম্যারাডোনার মতো এত বড় একজন কিংবদন্তিকে হাতের নাগালে দেখে ছবি তোলার লোভ সামলাতে পারেননি। তা যা-ই হোক, পেশাদারি বাধ্যবাধকতা বলেও তো একটা কথা আছে, তাই না? পাশে ম্যারাডোনা থাকুক আর যে–ই থাকুক, মোলিনার পেশাটাই এমন, ছবি তোলা যাবে না। অন্তত পেশাদারি দায়িত্ব পালন করার সময় তো অবশ্যই না।

কে এই দিয়েগো মোলিনা? তার সঙ্গে ম্যারাডোনার সম্পর্কই-বা কী? মোলিনার কাজ ম‚লত মৃতদেহ সৎকারসংক্রান্ত। আর্জেন্টিনার প্রেসিডেনশিয়াল প্যালেস কাসা রোসাদায় সৎকারকর্মী হিসেবে কাজ করেন। ম্যারাডোনাকে বহনকারী কফিনটি সেখানে রাখা হয়েছিল। এত বড় এক তারকাকে হাতের নাগালে পেয়ে নিজেকে আটকে রাখতে পারেননি মোলিনা। ভুলে গিয়েছিলেন পেশাদারি দায়দায়িত্ব। কফিন খুলে ম্যারাডোনার নিথর দেহের সঙ্গে ছবি তুলে পোস্ট করেছেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

ব্যস, ঝড় উঠে যায় আশপাশে। এমন নিন্দনীয় কাজ দেখে যারপরনাই খেপে গিয়েছেন ম্যারাডোনার আশপাশের মানুষ। ম্যারাডোনার আইনজীবী মাতিয়াস মোরলাই যেমন গোটা ব্যাপারকে ম্যারাডোনার প্রতি চ‚ড়ান্ত অসম্মানের বহিঃপ্রকাশ হিসেবেই দেখছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মোরলা লিখেছেন, ‘আমার প্রিয় বন্ধুর ফেলে যাওয়া স্মৃতির জন্য হলেও আমি তখনই শান্ত হব, যখন এই ঘৃণ্য কাজটা যে করেছে, তাকে সমুচিত শাস্তি দেওয়া হয়।’
এর মধ্যেই মোলিনাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে তাঁকে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছাঁটাই-কর্মী
আরও পড়ুন