Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

যুবককে ‘পিটিয়ে হত্যা’, পুলিশের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

প্রকাশের সময় : ২০ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

রংপুর জেলা সংবাদদাতা : রংপুর শহরের খাশবাগ বালাটারী এলাকায় নুরনবী নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। তবে পুলিশের দাবি, নুরনবী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। স্থানীয়রা পুলিশের এই দাবিতে বিশ্বাস করছে না। পুলিশের শাস্তির দাবিতে বিরুদ্ধে এলাকায় বিক্ষোভ করেছে তারা।
শনিবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। নুরনবীর মরদেহ এখন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে আছে। নুরনবী ওই এলাকার আব্দুর রশিদ মিয়ার ছেলে।
নিহত যুবকের স্বজনদের অভিযোগ, নুরনবীরা তিন ভাই এবং স্থানীয় যুবক তোফাজ্জল ও গোলজার মিলে বাড়ির পাশে ইলেক্ট্রিক যন্ত্রাংশের ব্যবসা করে। শুক্রবার রাত সাড়ে তিনটার দিকে মাহিগঞ্জ সাতমাথা এলাকার পুলিশ সোর্স বাবুর নেতৃত্বে নুরনবীদের বাড়িতে আসে পুলিশ। এ সময় তিন ভাইকে আটক করে মারধর করে পুলিশ। পরে তাদের বিরুদ্ধে মামলা আছে বলে জানানো হয়। স্বজনদের অভিযোগ, পুলিশকে ৮০ হাজার টাকা দিলে তারা তোফাজ্জল এবং গোলজারকে ছেড়ে দেয়। আর মারধর করতে থাকে নুরনবীকে। পরে ভোর চারটার দিকে তিনি মারা যান।
রংপুর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ বি এম জাহিদুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ সময় এলাকাবাসী অভিযুক্তদের বিচার দাবি করেন।
জাহিদুল ইসলাম জানান, নূরনবীর বিরুদ্ধে মোটরসাইকেল চুরির মামলা আছে। পুলিশ গত রাতে তাকে আটক করার পর পর ‘হার্ট অ্যাটাক’ হয়। এরপর তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানেই মারা যায় তিনি।
এই পুলিশ কর্মকর্তার দাবি, চিকিৎসকও তাকে বলেছেন, নুরনবীর মৃত্যুর কারণ হার্ট অ্যাটাক। তার গায়ে কোনো আঘাতের চিহ্ন ছিল না।
তবে এলাকাবাসী পুলিশ কর্মকর্তার বক্তব্য মেনে না নিয়ে প্রতিবাদ জানাতে থাকে। পরে তিনি বলেন, ‘ঘটনার তদন্ত করা হবে। কোনো পুলিশ কর্মকর্তা দায়ী হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ