Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৯ মাঘ ১৪২৭, ০৯ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

পারস্য উপসাগরে মার্কিন রণতরী মোতায়েন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ নভেম্বর, ২০২০, ১২:৪২ পিএম

ইরানের প্রতিশোধের হুমকির মধ্যেই পারস্য উপসাগরে মার্কিন বিমানবাহী রণতরী ইউএসএস নিমিৎজকে পারস্য উপসাগরে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, পারস্য উপসাগরে রণতরীটি বুধবার মোতায়েন করা হয়। এরপর মার্কিন নৌবাহিনীর বাহরাইনভিত্তিক পঞ্চম নৌবহরের মুখপাত্র কমান্ডার রেবেকা রিব্যারিচ এক বিবৃতিতে জানান, নিমিটজ ক্যারিয়ার স্ট্রাইক গ্রুপের ফিরে আসার ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট কোনো হুমকির ভূমিকা নেই।
আমেরিকার এক সামরিক কর্মকর্তা সিএনএন টেলিভিশনকে জানান, বিমানবাহী রণতরী মোতায়েনের অর্থ হবে ইরাক এবং আফগানিস্তান থেকে যেসব মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হচ্ছে তাদেরকে কমব্যাট সাপোর্ট এবং এয়ার কভার দেয়া। আগামী ১৫ জানুয়ারির আগে আফগানিস্তান এবং ইরাক থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নিতে চায় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন।
ইরানের শীর্ষ পর্যায়ের পদার্থবিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদে শুক্রবার শহীদ হওয়ার আগে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। তবে মার্কিন ওই কর্মকর্তা মনে করেন, আমেরিকার এ ধরনের পদক্ষেপ ইরানের বিরুদ্ধে শক্তি প্রদর্শনের বার্তা দেবে।
শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) ইরানের রাজধানী তেহরানের কাছে বিখ্যাত বিজ্ঞানী ও গবেষককে সন্ত্রাসী হামলার মাধ্যমে শহীদ করা হয়। এই বিশেষজ্ঞকে হত্যার ঘটনায় ইসরায়েলকে দায়ী করেছে ইরান। সেইসঙ্গে এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নেওয়ার অঙ্গীকার করেছে দেশটি।
ইহুদিবাদী ইসরাইলের যুদ্ধবাজ প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ২০১৮ সালের একটি অনুষ্ঠানে ইরান-বিরোধী আলোচনা করতে গিয়ে বিজ্ঞানী ফাখরিযাদের নাম বার বার উল্লেখ করেছিলেন। সে সময় তিনি হুমকি দিয়ে বলেছিলেন- স্মরণ রাখবেন নামটি হচ্ছে ফাখরিজাদে। ফাখরিজাদে ইরানের একজন গুরুত্বপূর্ণ বিজ্ঞানী ছিলেন। তাকে ইরানি বোমার জনক বলা হতো। সূত্র : রয়টার্স



 

Show all comments
  • এ, কে, এম জামসেদ ২৯ নভেম্বর, ২০২০, ৫:৩৭ পিএম says : 0
    এভাবে হুমকি দিয়ে আমেরিকা আধিপত্যবাদ, সাম্রাজ্যবাদ প্রতিষ্ঠা করে যাচ্ছে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইরান-যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন