Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০২ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী

টিগ্রের রাজধানী মেকেলে ‘সম্পূর্ণ দখলে’ নেয়ার দাবি ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রীর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ নভেম্বর, ২০২০, ১২:৫৪ পিএম

ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবিই আহমেদ বলেছেন যে, সরকারি বাহিনী দেশটির উত্তর টিগ্রে'র আঞ্চলিক রাজধানী 'সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে' নিয়েছে। 'টিগ্রে পিপলস লিবারেশন ফ্রন্ট' (টিপিএলএফ) এর বিরুদ্ধে আগ্রাসনের ব্যাপকতা বাড়ানোর পর মেকেলে অঞ্চল দখল করে সেনাবাহিনী।
সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে টিপিএলএফ'এর নেতা বলেছেন যে তারা 'আত্ম-সংকল্প বজায় রাখার অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে শেষ পর্যন্ত আক্রমণকারীদের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাবে। সাম্প্রতিক এই সংঘর্ষে শত শত মানুষ মারা গেছে এবং কয়েক হাজার মানুষ ঘড়ছাড়া হয়েছেন। আঞ্চলিক দল টিপিএলএফে'এর বিরুদ্ধে ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী মি. আবিই আগ্রাসনের ঘোষণা দিলে এই মাসের শুরুতে সংঘাতের শুরু হয়।
টুইটারে এক বিবৃতিতে মি. আবিই লিখেছেন যে সেনাবাহিনী ঐ অঞ্চলের পুরো নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে।
তিনি বলেন, "আমি জানাতে পেরে আনন্দিত যে আমাদের কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং টিগ্রে অঞ্চলের সেনা অভিযান স্বথগিত হয়েছে।"
মি. আবিই জানিয়েছেন যে সেনাবাহিনী টিপিএলএফ'এর হাতে আটক হওয়া কয়েক হাজার সেনাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে এবং 'বেসমারিক নাগরিকদের নিরাপত্তা মাথায় রেখে' অভিযান চালানো হয়েছে।
মি আবিই বলেছেন: "যা ধ্বংস করা হয়েছে, সেগুলো পুনর্র্নিমানের এবং যারা শহর ছেড়ে চলে গেছে তাদের ফিরিয়ে আনার কঠিন কাজ এখন আমাদের সামনে।"
তবে ঐ অঞ্চলে সংঘাতের বিষয়ে বিস্তারিত জানা কঠিন, কারণ টিগ্রে'র সাথে সব ধরণের ফোন, মোবাইল এবং ইন্টারেনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে।
এদিকে সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে পাঠানো একটি টেক্সট মেসেজে টিপিএলএফ নেতা দেব্রেতসিয়ন গেব্রেমাইকেল যুদ্ধক্ষেত্রের পরিস্থিতি সম্পর্কে সরাসরি মন্তব্য না করলেও অভিযোগ করেছেন যে, সরকারি বাহিনীর 'নৃশংসতা'র কারণে 'শেষ পর্যন্ত যুদ্ধ' করাটাকেই তারা একমাত্র সমাধান মনে করছেন।
বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, টিপিএলএফ এখন পাহাড়ে পালিয়ে গিয়ে পরবর্তীতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে গেরিলা আক্রমণের প্রস্তুতি নিতে পারে। ধারণা করা হয় তাদের সংখ্যা আনুমানিক ২ লাখ ৫০ হাজার।
দাতব্য সংস্থাগুলো আশঙ্কা করছে এই সংঘাতের কারণে মানবাধিকার সঙ্কট তৈরি হতে পারে এবং হর্ন অব আফ্রিকা অঞ্চলকে অস্থিতিশীল করে তুলতে পারে। ইথিওপিয়ার সরকার নিয়োজিত মানবাধিকার কমিশন টিগ্রে'র যুবকদের বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগ এনেছে।
কমিশন বলছে, মাই-কাদ্রা শহরে ৬০০'র বেশি টিগ্রে'র বাইরের বেসামরিক নাগরিককে হত্যা করেছে তারা। টিপিএলএফ ঐ ঘটনার সাথে কোনো ধরণের সংশ্লিষ্টতা অস্বীকার করেছে। সূত্র : বিবিসি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইথিওপিয়া

২৭ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ