Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯, ০৬ চৈত্র ১৪২৫, ১২ রজব ১৪৪০ হিজরী।

পানি না থাকায় পাতা শুকিয়ে বিবর্ণ হচ্ছে আমন ক্ষেত

প্রকাশের সময় : ২১ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বোদা (পঞ্চগড়) উপজেলা সংবাদদাতা

পঞ্চগড়ের বোদায় আমন ধান নিয়ে শঙ্কিত কৃষক, প্রচ- খড়ায় আমন ধানের মাটি ফেটে চৌচির। ভরা মৌসুমে আমন ধানের চারা লাগানো শেষ হয়েছে। এখন ধানের ক্ষেত সবুজ ও সতেজ হয়ে উঠার কথা। কিন্তু বর্ষার শুরুতে বেশ ভালো পানি ছিল। আমন ধানের চারা লাগোনো শেষ হতে না হতেই খড়া শুরু হয়েছে। প্রচ- খড়ায় ভরা মৌসুমে আমন ক্ষেত পানির অভাবে ফেটে যাচ্ছে। ১/২ সপ্তাহে বৃষ্টিপাত না হলে কৃষকেরা মারাত্মক ক্ষতির আশঙ্কা করছে। আকাশে মেঘ দেখা দিলে বৃষ্টি নেই। প্রচ- গরমে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে সাধারণ মানুষ। দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে জনজীবন। খরার কারণে দিনমজুর শ্রেণির লোকজনদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দুপুরে প্রচ- গরমে মাঠে কাজ করতে পারছে না কৃষকেরা। হাজার হাজার একর আমন ক্ষেতের মাঠ শুকিয়ে গেছে। আমন ক্ষেতের পাতা শুকিয়ে গাঢ় হলুদ লাল বর্ণের হয়ে যাচ্ছে। আমন ক্ষেত বাঁচিয়ে রাখতে সেচের উপর নির্ভর করতে হচ্ছে কৃষকদের। পাট জাগ লাগানো থেকে শুরু করে আঁশ ছাড়ানো নিয়ে কৃষক পড়েছে বিপাকে। কারণ ছোট ছোট খাল-বিলগুলো শুকিয়ে গেছে। কেউ কেউ মেশিন দিয়ে খাল-বিল ভরাট করছেন। এই পরিস্থিতিতে কৃষক এখন প্রকৃতির উপর নির্ভর করে বসে আছে। এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি অফিসার মো. আল মামুন-অর-রশিদ জানান, এ উপজেলায় চলতি মৌসুমে আমন ধানের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২০ হাজার ২শত ১০ হেক্টর। কিন্তু লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে ২০ হাজার ২শত ২৫ হেক্টর। বৃষ্টির অভাবে আমন ক্ষেতে একটু সমস্যা দেখা দিয়েছে। বৃষ্টি হলেই আমন ধানের ক্ষেতগুলো আরো সবুজ ও সতেজ হয়ে উঠবে বলে তিনি মনে করেন। প্রাথমিকভাবে অনেক কৃষককে তিনি বরেন্দ্র অথবা শ্যালো মেশিন দিয়ে পানি দেয়ার পরামর্শ প্রদান করছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ