Inqilab Logo

শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯ আশ্বিন ১৪২৮, ১৬ সফর ১৪৪৩ হিজরী

জম্মু-কাশ্মীরে অবৈধ তৎপরতা থেকে বিরত থাকুন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

নাইজারে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) সম্মেলনের এজেন্ডায় কাশ্মীর ইস্যু থাকবে কিনা তা নিয়ে সাংঘর্ষিক প্রতিবেদনের মধ্যে ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা সর্বসম্মতভাবে কাশ্মীর ইস্যুর প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেছেন। এটি পাকিস্তানের একটি কূটনৈতিক বিজয় হিসেবে অভিহিত হচ্ছে। ঐতিহাসিক এক উদ্যোগে ওআইসি সর্বসম্মতভাবে পাকিস্তানের উত্থাপিত প্রস্তাবটি গ্রহণ করে। এতে জাতিসঙ্ঘ মহাসচিবকে বাড়তে থাকা ইসলামফোবিয়া প্রতিরোধ ও আন্তঃধর্মীয় সম্প্রীতি বাড়ানোর জন্য বৈশ্বিক সংলাপ শুরুর আহবান জানানো হয়। পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি নাইজারে ওই প্রস্তাব উত্থাপন করেন। তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতের আন্তর্জাতিক সহযোগিতাবিষয়ক মন্ত্রী রিম আল হাশেমির সাথে বৈঠকে আমিরাতে পাকিস্তানি নাগরিকদের ভিসা নিষিদ্ধ করার বিষয়টিও উত্থাপন করেন। নাইজার থেকে প্রাপ্ত খবরে জানা যায়, ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা পাকিস্তানের প্রস্তাবটি সর্বসম্মতভাবে গ্রহণ করেন। ওআইসি সুস্পষ্টভাবে ৫ আগস্ট ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের মর্যাদা একতরফাভাবে পরিবর্তনকে প্রত্যাখ্যান করে। তারা কাশ্মীরে ভারতের অবৈধ তৎপরতা অবসানের আহবানও জানায়। এতে অকাশ্মীরীদেরকে ডোমিসাইল সার্টিফিকেট প্রদান করার নিয়মও বাতিল করার দাবি জানানো হয়। ৫৭ সদস্যবিশিষ্ট ওআইসি কাশ্মীরের জনসংখ্যা পরিবর্তন করার যেকোনো পদক্ষেপ গ্রহণ থেকে বিরত থাকার জন্য ভারতের প্রতি আহবান জানায়। পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা ভারত-অধিকৃত কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনেরও নিন্দা করেন। কাশ্মীরী জনগণের ওপর রাষ্ট্রীয় মদতপুষ্ট সন্ত্রাসের নিন্দাও তারা করেন। ডন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জম্মু-কাশ্মীর

১ জানুয়ারি, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন