Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০২ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী

ময়নাতদন্তের টেবিলে চিৎকার!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

অনায়াসে ভূতের সিনেমা বলে গোটা ঘটনাটাকে চালিয়ে দেওয়া যেতে পারে। কিংবা কোনও সাসপেন্স মুভি। অটোপ্সি টেবিলে হঠাৎ জেগে উঠল ‘মৃতদেহ’। জুড়ে দিল চিৎকার। ভয়ে দূরে সরে যান মর্গের কর্মীরা। কিন্তু না, কোনো ভূতের গল্প, না কোনো সাসপেন্স মুভি। কঠোর বাস্তব। চিকিৎসায় গাফিলতির ফল।
আফ্রিকার দেশ কেনিয়ার বুরেত্তি অঞ্চলের একটি ছোট গ্রামের বাসিন্দা পিটার কিগেন (৩২)। পেটের কিছু সমস্যা নিয়ে ভুগছিলেন তিনি। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, পেটের চিকিৎসার জন্যই কেরিচো এলাকার কাপলাটেট হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে।
শেষ পর্যন্ত তাতেই ‘কোলাপ্স’ করে যান পিটার। অন্তত চিকিৎসকরা তেমন কথাই বলেছিলেন। নার্স পরিবারের সদস্যদের তা জানিয়ে দেন। সাধারণ আইন মেনেই এরপর পিটারের ‘দেহের’ ময়নাতদন্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়।
ঘণ্টা চারেক পর যখন সেই প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে, তখনই হঠাৎ টেবিলে যন্ত্রণায় চিৎকার করে ওঠেন। আসলে মর্গের কর্মীরা কিগেনের পায়ের শিরা কেটে শরীর থেকে রক্ত বের করে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরুর সময়েই চেঁচিয়ে ওঠেন তিনি। প্রথমে মর্গের কর্মীরা প্রচন্ড ভয় পেয়ে যান। তবে ঘাবড়ে গেলেও তারা বুঝতে পারেন যে কিগেন আসলে মারা যাননি। শুধুমাত্র অচেতন হয়ে ছিলেন।
অচেতন এক ব্যক্তিকে ‘মৃতের’ তকমা দিয়ে তাকে দেহ মর্গে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। পায়ের শিরা কাটায় সময়ই চেতনা ফিরে আসে কিগেনের। অবিলম্বে কিগেনকে মর্গ থেকে ফিরিয়ে এনে ফের চিকিৎসা শুরু করা হয়।
তবে এই ঘটনায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা। কীভাবে একজন জলজ্যান্ত মানুষকে মৃত বলে ঘোষণা করলেন চিকিৎসকরা, তা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। সূত্র : মেট্রো ইউকে, রিপাবলিক ওয়ার্ল্ড।



 

Show all comments
  • গিয়াস উদ্দীন ফোরকান ১ ডিসেম্বর, ২০২০, ২:২৪ এএম says : 0
    আল্লাহ হু আকবার
    Total Reply(0) Reply
  • সাদ্দাম ১ ডিসেম্বর, ২০২০, ২:২৫ এএম says : 0
    বিষয়টি যাদের সামনে ঘটেছে, তারাই এর অনুভুতি উপলব্ধি করতে পেরেছে
    Total Reply(0) Reply
  • পারভেজ ১ ডিসেম্বর, ২০২০, ২:২৬ এএম says : 0
    সবই আল্লাহর ইচ্ছে
    Total Reply(0) Reply
  • কামাল ১ ডিসেম্বর, ২০২০, ২:২৬ এএম says : 0
    এটাও একটি মিরাকেল
    Total Reply(0) Reply
  • টুটুল ১ ডিসেম্বর, ২০২০, ২:২৭ এএম says : 0
    তার পরিবারের জন্য এটা একটি সুখবর
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ