Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ০৫ মাঘ ১৪২৭, ০৫ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

বিচারকের প্রতি অনাস্থা জানালেন ২২ আসামির আইনজীবী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:০৬ এএম

ন্যায় বিচার না পাওয়ার আশঙ্কা ব্যক্ত করে বিচারকের প্রতি অনাস্থা জ্ঞাপন করেছেন আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার ২২ আসামি পক্ষীয় আইনজীবীরা। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকার দ্রæত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের প্রতি তারা এ অনাস্থা জানান।
অনাস্থা আবেদনে বলা হয়, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় বেআইনিভাবে মামলার সাক্ষীদের পুনরায় আদালতে ডেকে জবানবন্দী নেয়া হয়েছে। এতে নিরপেক্ষ বিচার নিয়ে আসামিদের ন্যায়বিচারের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।
এ বিষয় ট্রাইব্যুনালের কৌঁসুলি আবু আব্দুল্লাহ ভুইয়া বলেন, বিচার কাজকে বিলম্বিত করার জন্য আসামিপক্ষের আইনজীবীরা বিচারকের ওপর অনাস্থা দিয়েছেন। এ বিষয়ে শুনানির জন্য আগামী ৬ ডিসেম্বর দিন ধার্য করা হয়েছে।
আসামিপক্ষের অ্যাডভোকেট মনজুরুল আলম বলেন, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় নিরপেক্ষ বিচার নিয়ে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এ কারণে আমরা বিচারকের প্রতি অনাস্থা আবেদন দিয়েছি।
এদিকে গতকাল আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন আলোকচিত্র বিশেষজ্ঞ কে এম নাজমুল ইসলাম। আদালত পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ ধার্য করা হয়েছে আগামী ৬ ডিসেম্বর। এ নিয়ে মামলায় মোট ৬০ সাক্ষীর মধ্যে ৪০ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ সম্পন্ন হলো।
প্রসঙ্গতঃ ফেসবুকে ভারত বিরোধী স্ট্যাটাস দেয়ার জেরে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা পিটিয়ে হত্যা করে। নিহত আবরার বুয়েটের ইলেকটিকেল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। শেরেবাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন তিনি। ওই ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ চকবাজার থানায় হত্যা মামলা করেন। এতে ১৯ জনকে আসামি করা হয়। ২০১৯ সালের ১৩ নভেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলাটি তদন্ত করেন ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান।
অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে এজাহারভুক্ত ১৯ জন এবং তদন্তে আগত ৬ জন রয়েছেন। এজাহারভুক্ত ১৯ জনের মধ্যে ১৬ জন এবং এজাহারবহির্ভূত ৬ জনের মধ্যে ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এর মধ্যে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন ৮ জন।



 

Show all comments
  • Ashraf Hossain ৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ৮:৪৪ এএম says : 0
    ঐসব আইনজীব দের চেহারা প্রকাশ করা হোক।। এক মায়ের , একটি পরিবারের। স্বপ্ন , একজন মেধাবীর জীবনকে নির্মম ভাবে হত্যার সরাসরি আসামী দের বাঁচাতে হবে। এটাই ওদের কাজ।
    Total Reply(0) Reply
  • Tarikul Islam ৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ৮:৪৪ এএম says : 0
    রায়ে অপরাধীদের খালাস দিলেই বিচারকের প্রতি আস্থা থাকবে
    Total Reply(0) Reply
  • Wilfred Quiah ৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ৮:৪৫ এএম says : 0
    " আসামিপক্ষের অ্যাডভোকেট মনজুরুল আলম বলেন, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় নিরপেক্ষ বিচার নিয়ে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এ কারণে আমরা বিচারকের প্রতি অনাস্থা আবেদন দিয়েছি।" These Lawyers and the accused have taken the Law, Court and the Judges as jokes. Here, question is one 1. Do you agree that the crime has been done by you? The accused should either admit or claim trial. In this type of cases the system should be " The accused's are guilty till they prove themselves innocents not the other way round. The group is the part of the ruling party can not be the excuse to go escort free from a severe crime like murder. These are happening because in the past many were let go escort free. There is a saying, forgiving one crime is to give chance committing another.
    Total Reply(0) Reply
  • Asgar Alim ৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ৮:৪৬ এএম says : 0
    এ ভারতের এজেন্টদের বিচার এদেশে হবে না, কারণ বিশ্বজিতের বিচারে তাই দেখা গেছে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আবরার

২২ ডিসেম্বর, ২০২০
১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ