Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ জুন ২০২১, ০৬ আষাঢ় ১৪২৮, ০৮ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন বাতিল ঘোষণা

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৭ ডিসেম্বর, ২০২০, ৪:৪৯ এএম

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচন বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। রোববার (০৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশনার সচিবালয়ের এক আদেশে এ কথা জানা গেছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান বলেন, নির্বাচন কমিশনারের নির্দেশক্রমে উপসচিব মো. আতিয়ার রহমান নির্বাচন পরিচালনা কমিটি-২ অধি শাখা স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপন থেকে এ কথা জানা গেছে।

ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে ফরিদপুর জেলার চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এর শূণ্য পদে ১০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত উপ-নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত করার জন্য তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিট গঠন করা হয়। কমিটি তদন্ত শেষে নির্বাচন কমিশনারের নিকট প্রতিবেদন পেশ করেন। তদন্ত প্রতিবেদনে নির্বাচন পরিচালনায় অনিয়ম সংঘটিত হওয়ার বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় নির্বাচন কমিশন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বিধিমালা ২০১৩ এর বিধি ৮৮ অনুসারে বাতিল করা হয়েছে। নতুন নির্বাচনের তারিখ পরবর্তিতে ঘোষণা করা হবে।

গত ১০ অক্টোবর এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ ওঠে। ভোটের আগের দিন রাতে ব্যালট পেপারে সিল মেরে বাক্সে ভরে রাখার অভিযোগে ১৫ নম্বর চরভদ্রাসন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের নির্বাচন শুরুতেই স্থগিত করা হয়। ওই কেন্দ্রে মোট ভোটর ছিলেন দুই হাজার পাঁচশত জন।

এছাড়া নির্বাচনের দিন একটি কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়ার চেষ্টার ঘটনায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর এক সমর্থককে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আটক করার প্রতিবাদ জানিয়ে ভাঙ্গা, সদরপুর ও চরভদ্রাসন নিয়ে গঠিত ফরিদপুর-৪ আসনের সাংসদ মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন চরভদ্রাসনের ইউএনও জেসমিন সুলতানাকে মুঠোফোনে ফোন করে প্রকাশ অযোগ্য অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন সাংসদ।

নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর রাত ৮টার দিকে চরভদ্রাসন উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে সমবেত জনতার উদ্দেশ্যে বক্তব্য দিতে গিয়ে সাংসদ আচরণবিধি ভঙ্গ করে ওই নির্বাচনে ১২ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে নিয়োগ দেওয়ার ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে জেরা প্রশাসককে ‘রাজাকার’ আখ্যায়িত করে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন।

নির্বাচনে অনিয়ম ও সাংসদের আচরণ সারাদেশে আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে স্থানীয় ফরিদপুর-৪ আসনের সাংসদ মজিবুর রহমান নিক্সনের বিরুদ্ধে তিন দফা আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে গত ১৫ অক্টোবর চরভদ্রাসন থানায় মামলা করে নির্বাচন কমিশন

এ ছাড়া গঠন করা হয় তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি। এ কমিটি গত ২১ ও ২২ অক্টোবর ফরিদপুর ও চরভদ্রাসনে সরেজমিনে পরিদর্শন করে সংশ্লিষ্টদের মতামত তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে। এ কমিটির প্রধান ছিলেন নির্বাচন কমিশন এর অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার সাহা। সদস্য সচিব ছিলেন নির্বাচন কমিশনের উপ-সচিব মো. সায়েদুন্নবী চৌধুরী এবং সদস্য হলেন ঢাকা নির্বাচন ইনস্টিটিউটের মহা পরিচালক নূরুজ্জামান তালুকদার।

ফোন না ধরায় এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. কাওসার হোসেন এর বক্তব্য জানা যায়নি।

গত বছরের ২৩ অক্টোবর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোশারফ হোসনে মুসার মৃত্যুর কারণে পদটি শূন্য হয়ে যায়। গত ২৯ মার্চ এ উপ-নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। করোনার কারণে তা পিছিয়ে ১০ অক্টোবর ভোট গ্রহনের দিন ঠিক করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উপনির্বাচন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ