Inqilab Logo

শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২১ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

অবাস্তব শর্তে জাতিসংঘকে সম্পৃক্ত করা হয়নি

রোহিঙ্গা স্থানান্তর

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

জাতিসংঘের (ইউএন) সংস্থাগুলোর অব্যাহত নেতিবাচক প্রচারণা, অবাস্তব শর্ত, অনড় অবস্থান ও অসহযোগিতার কারণে ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তর প্রক্রিয়ায় সংস্থাটিকে এ পর্যন্ত সম্পৃক্ত করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ১ হাজার ৬৪২ জন রোহিঙ্গাদের খাদ্য ও আবাসনসহ অন্যান্য লজিস্টিকস সাপোর্ট দেয়া অব্যাহত রাখা হয়েছে। তবে জাতিসংঘসহ মানবিক সহায়তা প্রদানকারী অন্যান্য দাতা দেশ এবং সংস্থাগুলোকে স্থানান্তরিত রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা দিতে সম্পৃক্ত করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ১৭তম বৈঠকে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নেয়ার সময় জাতিসংঘকে সম্পৃক্ত করা হয়নি এমন বিবৃতির জবাবে এসব কথা জানায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বৈঠকে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবর্তন ও তাদের ভাসানচরে স্থানান্তরের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে আলোচনা হয় এবং যুক্তরাষ্ট্রে নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতের উপস্থাপিত কর্মপরিকল্পনায় কমিটির পক্ষ থেকে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবর্তনে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা জোরদার করতে কমিটি মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করেছে।

কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান সাংবাদিকদের বলেন, ভাসানচর নিয়ে সংসদীয় কমিটিতে একটি প্রতিবেদন উত্থাপিত হয়েছে। জাতিসংঘকে সম্পৃক্ত করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সাগরে ভেসে থাকা ৩০৬ জন রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে প্রথম নেয়ার পর গোলমাল বেধে যায়। তারা পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ায় সেখানে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করে। তারা বড় একটা স্বপ্ন নিয়ে মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা করছিল। এজন্য তারা ভাসানচরে থাকার বিষয়ে বিরোধিতা করে। তাই কক্সবাজার শিবিরে থাকা তাদের পরিবারের সঙ্গে মিলিয়ে দেয়ার জন্য বলেছে সংসদীয় কমিটি।

মুহাম্মদ ফারুক বলেন, জাতিসংঘের দু-তিন মাস আগে যে অবস্থান ছিল গত দু’দিনে এর পরিবর্তন হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের কথা হলো জোরপূর্বক নেয়া হলে তারা এখন বলে কেন তারা স্বেচ্ছায় গেছে এবং সেখানে ভালো আছে। এসব কথার মূল উৎস হলো ওই ৩০৬ জন। ওইসব রোহিঙ্গা যখন গভীর সমুদ্রে মরার মতো অবস্থায় ছিল তখন কিন্তু জাতিসংঘ এগিয়ে আসেনি। এমনকি অন্য কোনো দেশকেও বলেনি। তারা শুধু টেলিফোনে বলেছে, আপনারা উদ্ধার করেন। আমরা উদ্ধার করে ওই লোকদের ভাসানচরে নিয়ে রেখেছি।

সংসদ প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কমিটির বৈঠকে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবর্তন ও তাদের ভাসানচরে স্থানান্তরের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে আলোচনা হয়। যুক্তরাষ্ট্রে নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতের উপস্থাপিত কর্মপরিকল্পনায় কমিটির পক্ষ থেকে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়।

সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, কমিটির সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ, কে, আব্দুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, মো. আব্দুল মজিদ খান, নাহিম রাজ্জাক এবং কাজী নাবিল আহমেদ। এছাড়া পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রোহিঙ্গা

২৩ নভেম্বর, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন