Inqilab Logo

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

বিচারকের ওপর হামলা

চট্টগ্রামে আ.লীগ নেতার ছেলেসহ দুইজন রিমান্ডে

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১১ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:০২ এএম

নগরীতে এক বিচারকের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। উল্টোদিক থেকে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালিয়ে বিচারকের গাড়িতে আঘাত করেন আওয়ামী লীগ নেতার ছেলে। এর কারণ জানতে চাওয়ায় হামলা চালিয়ে বিচারককে মারধর করা হয়।
এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় গতকাল বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ নেতার পুত্রসহ দুই জনকে রিমান্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে শুনানি শেষে তাদের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

আসামিরা হলেন-আওয়ামী লীগ নেতা হাজি ইকবালের পুত্র আলী আকবর ও তার সহযোগী হাসান আলী জিসান। আকবর এবং তার পিতা মধ্যম হালিশহরে যুবলীগ নেতা মহিউদ্দিন হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি। পুলিশ জানায়, বুধবার বিকেলে ওই দুই যুবক পতেঙ্গার চরপাড়ায় আউটার রিং রোডে উল্টো পথে মোটরসাইকেল চালিয়ে আসেন। এসময় চট্টগ্রামের পঞ্চম যুগ্ম জেলা জজ জহির উদ্দিন গাড়িতে আসছিলেন।
তাদের বেপরোয়া মোটরসাইকেল বিচারকের গাড়িতে ধাক্কা দিলে বিচারক উল্টো পথে আসার কারণ জানতে চান। এসময় তারা হামলা চালিয়ে বিচারককে মারধর করেন। সেখানে উপস্থিত স্থানীয়রা হামলাকারীদের আটকে ফেলে। পরে পুলিশ তাদের থানায় নিয়ে আসে।

পতেঙ্গা থানার ওসি জোবাইর সৈয়দ ইনকিলাবকে বলেন, রাতেই বিচারকের গাড়ি চালক রাজু শেখ বাদী হয়ে আটক আকবর ও জিসানের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। এতে অজ্ঞাত আরো দুইজনকে আসামি করা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চার দিন করে রিমান্ডের আবেদনসহ আদালতে তোলা হয়। শুনানি শেষে আদালত তিন দিন করে রিমান্ডের আদেশ দেন।

আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, হাজি ইকবালকে দল থেকে বহিষ্কার করা হলেও তিনি আওয়ামী লীগ নেতা পরিচয়ে এলাকায় তৎপর রয়েছেন। ২০১৮ সালের ২৬ মার্চ হালিশহর মেহের আফজল উচ্চ বিদ্যালয়ে যুবলীগ নেতা মহিউদ্দিনকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করেন হাজি ইকবাল, তার ছেলে আকবরসহ তাদের সহযোগীরা।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিচারক

১৭ এপ্রিল, ২০২২
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১
১১ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ