Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

বৃষ্টি ও যানজট নগরবাসীর দুর্ভোগ চরমে

প্রকাশের সময় : ২২ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সায়ীদ আবদুল মালিক : লঘুচাপের প্রভাবে রাজধানীতে গত কয়েকদিন ধরে কখনও হালকা কখনও ভারি বর্ষণ হচ্ছে। এতে নগরীর নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোসহ পাড়া-মহল্লার রাস্তায় পানি জমে সৃষ্টি হয়েছে চরম ভোগান্তির। থেমে থেমে বৃষ্টি হওয়ার কারণে কোন কোন এলাকায় কাদা আর পানি মিলে একাকার হয়ে সৃষ্টি হচ্ছে বাড়তি ভোগান্তির। সকাল থেকেই নানা প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হয়ে নগরবাসীকে পড়তে হয়েছে চরম দুর্ভোগে। বৃষ্টির কারণে যানজট শহরজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। গাবতলী থেকে সায়েদাবাদ, পুরান ঢাকা থেকে উত্তরা সবখানেই ছিল একই চিত্র। সড়কে দুইধারে যানবাহনের দীর্ঘ লাইন। এক থেকে দেড় কিলোমিটার পথ যেতে সময় লেগেছে তিন থেকে সাড়ে তিন ঘণ্টা। গাড়ি যেন এগুতে চায় না। বিশেষ করে বিকেলে অফিস থেকে ঘরে ফেরা মানুষ পড়েছিল চরম দুর্ভোগে।
ভাদ্র মাসের শুরুতেই প্রকৃতিতে এই বৃষ্টি এই নাই। হঠাৎ মুষলধারে আবার গুঁড়ি গুঁড়ি। মেঘ আর বৃষ্টির এ যেন এক খামখেয়ালি। গত কয়েকদিন ধরে রাজধানী শহর ঢাকাসহ দেশের নানা স্থানে এভাবেই থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে। যথারীতি গতকাল রোববারও সকাল থেকে থেমে থেমে, কখনও গুঁড়ি গুঁড়ি আবার কখনও মুষলধারে বৃষ্টি হয়। আবহাওয়াবিদ মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান গতকাল রোববার সকালে বলেন, ভারতে অবস্থানরত লঘুচাপটি পশ্চিম দিকে সরে গিয়ে বর্তমানে বাংলাদেশের স্থলভাগে অবস্থান করছে। এটি আরও শক্তি সঞ্চার করতে পারে। এর প্রভাবেই দেশের মধ্য ও দক্ষিণাঞ্চল পেরিয়ে উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত ঝড় বৃষ্টি হচ্ছে। আগামী ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত এ বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। আবহাওয়ার সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, লঘুচাপের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা (বজ্র মেঘ) তৈরি হচ্ছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্রবন্দরগুলোর উপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এজন্য চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে সতর্ক বার্তায়। রোববার সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে মাইজদীকোর্টে, সেখানে ১০৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এ সময়ে ঢাকায় ২ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদফতর।
গতকাল রোববার সরেজমিন দেখা গেছে, রাজধানীর শান্তিনগর, মালিবাগ, আগারগাঁও, মিরপুর, যাত্রাবাড়িসহ বেশকিছু এলাকা ও মহাসড়কে বৃষ্টির কারণে তৈরি হয়েছে পানিবদ্ধতা। অপরিকল্পিত নগরায়নে পানি জমার সমস্যাটা দিন দিন প্রকট হচ্ছে বলছেন নগর পরিকল্পনাবিদরা।
এদিকে গুঁড়ি গুঁড়ি আর ভারি বৃষ্টি মাথায় নিয়ে রোববার স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, বিশ্ববিদ্যালসহ বিভিন্ন অফিস-আদালতে চাকরিজীবীরা ও নানা প্রয়োজনে মানুষ ঘর থেকে বের হয়েই বিপাকে পড়ে। বিভিন্ন জায়গায় পানিবদ্ধতার কারণে নগরবাসীর দুর্ভোগের যেন শেষ ছিল না। পানিবদ্ধতার কারণে জুতা খুলে যাতায়াত করতে দেখা গেছে অনেককে। কোথাও কোথাও রাস্তায় জমে থাকা পানি বাসে উঠার সিঁড়ি পর্যন্ত উঠে যাচ্ছে। এতে বাসে উঠানামা করার সময় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে যাত্রীদের।
পানি জমে যাওয়ায় রাস্তায় খানা-খন্দকে রিকশা ভ্যান পড়ে আহত হয়েছেন অনেকে। এলাকার অনেক অলিগলির ড্রেন উপচে পড়ে রাস্তাঘাট ঘর-বাড়িতে পানি একাকার হয়ে গেছে। ফলে রাস্তায় জন-সাধারণের ভোগান্তি ছিল চোখে পড়ার মতো।
এদিকে নগর পরিকল্পনাবিদরা বলছেন, অপরিকল্পিত নগরায়নে পানি জমার সমস্যাটা দিন দিন প্রকট হচ্ছে। এছাড়া প্রতিবছর কার্পেটিং করায় অধিকাংশ সড়ক স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি উঁচু হচ্ছে। আর বসত এলাকা নিচু হচ্ছে।
এছাড়া পানিবদ্ধতার অন্যতম কারণ হিসাবে রাজধানীর অপরিকল্পিত ও অপর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা দায়ী। আর পরিকল্পিত নগর ব্যবস্থা নিশ্চিত করা না গেলে রাজধানীবাসীর দুর্দশা আরো বাড়বে বলে মনে করেন নগর পরিকল্পনাবিদরা।
বর্তমানে ঢাকা শহরের প্রাণ কেন্দ্র মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভার নির্মাণকাজ চলায় এ এলাকার বেশ কয়েকটি রাস্তার অবস্থা বেহাল। তাই এ এলাকার রাস্তাগুলোতে যানজট সকাল-দুপুর, রাত-দিন সবসময় লেগেই থাকে। এ থেকেই সারা শহর জুড়ে যানজট ছড়িয়ে পড়ে। এ কারণেই রাজধানীর যানজট এখন সপ্তাহের সাত দিনই থাকে। বিশেষ করে কর্মদিবসের শুরুর দিন রোববার, প্রধানমন্ত্রী সচিবালয়ে অফিস করেন সোমবার আর কর্মদিবসের শেষ দিন বৃহস্পতিবার এ তিনদিন রাজধানীর রাস্তায় ভয়াবহ যানজটে সৃষ্টি হয়। এ সময় নগরবাসীকে রাস্তায় নেমেই চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়।
প্রায় দুই কোটি মানুষের নগরী এই ঢাকাতে যানজট প্রতিদিনের চিরচেনা ঘটনা। যানজট নিরসনে সরকার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে অতীতে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের আগেও মেয়র প্রার্থীদের কণ্ঠে যানজট নিরসনের প্রতিশ্রুতি শোনা গিয়েছিল। কিন্তু দুই মেয়রের দায়িত্ব নেওয়ার প্রায় দেড় বছর পার হয়ে গেলেও পরিস্থিতির তেমন একটা পরিবর্তন ঘটেনি বলে নগরবাসীর দাবি।
গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে পানি জমে রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে দেখা দিয়েছে পানিবদ্ধতা। মোহাম্মদপুর, মালিবাগ, শান্তিনগর, মিরপুরসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় দেখা যায় প্রধান সড়কসহ পাড়া মহল্লার অলিগলির রাস্তাগুলোতে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। টানা বৃষ্টিতে বিভিন্ন সড়কের বেহাল দশা, কোথাও কোথাও সড়কগুলোতে বড় আকারের গর্তেরও সৃষ্টি হয়েছে। এরই মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ