Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৪ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

‘জলবায়ুর জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা করার আহ্বান জাতিসংঘ মহাসচিবের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ ডিসেম্বর, ২০২০, ৭:৪৭ পিএম

বিশ্ব এখন প্যারিস জলবায়ু চুক্তির লক্ষ্যমাত্রা হারানোর ঝুঁকিতে রয়েছে। তাই জলবায়ুর জরুরি অবস্থা ঘোষণা করতে বললেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস। প্যারিস জলবায়ু চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার পঞ্চম বর্ষপূর্তিতে শনিবার ভার্চুয়াল সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলো চুক্তিতে স্বাক্ষর করা দেশগুলো। সম্মেলনে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস সদস্যদেশগুলোকে ‘জলবায়ুর জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, বৈশ্বিক তাপমাত্রা ১.৫ ডিগ্রী সেলসিয়াসের মধ্যে রাখার যে চুক্তি হয়েছিলো তা বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতিবদ্ধতা থেকে অনেক দূরে আছে দেশগুলো। -দ্য গার্ডিয়ান, ফ্রান্স২৪

গুতেরেস ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জি-২০ ভুক্ত ধনী দেশগুলোই কার্বন দূষণের পেছনে সবচেয়ে দায়ী। তারা কার্বন নিঃসরণ কমানোর বদলে জীবাশ্ম জ্বালানি খাতে ৫০ শতাংশেরও বেশি ব্যয় করছে। এটি অগ্রহণযোগ্য। গুতেরেস সতর্ক করে বলেন, আমরা যদি চলমান পরিস্থিতির পরিবর্তন না করি তবে এই শতাব্দীতেই বৈশ্বিক তাপমাত্রা ৩ ডিগ্রী সেলসিয়াসের ওপরে চলে যাবে। তাই আজ আমি বিশ্বের প্রত্যেক দেশের নেতাকে শূন্য কার্বন নিঃসরণ অর্জন করা পর্যন্ত নিজ নিজ দেশে জলবায়ুর জরুরী অবস্থা ঘোষণা করার আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি বলেন, ২০৫০ সালের মধ্যে শূন্য কার্বন নিঃসরণ অর্জন করতে প্রতিটি দেশ, শহর, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও কোম্পানিগুলোকে রুপকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে। জাতিসংঘ বলেছে, বৈশ্বিক তাপমাত্রা ১.৫ ডিগ্রী সেলসিয়াসের মধ্যে বেঁধে ফেলতে হলে ২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ বার্ষিক ৭.৬ শতাংশ কমাতে হবে। ২০২০ সালে করোনা ভাইরাসজনিত লকডাউন ও চলাচলের সীমাবদ্ধতার কারণে কার্বন নিঃসরণ ৭ শতাংশ কমেছে। তবে গুতেরেস বলেন, দেশগুলো সবুজ অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন