Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ১৩ মাঘ ১৪২৮, ২৩ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

চাঁদাবাজির মামলায় ওসিসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৩ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

রাজধানীর কোতয়ালী থানার ওসি মিজানুর রহমানসহ ৫জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি পুলিশকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান মো. নোমানের আদালত এ আদেশ দেন। মামলার অপর আসামিরা হলেন, এসআই আনিসুল ইসলাম, এএসআই খায়রুল ইসলাম ও শহিদুল ইসলাম এবং সোর্স দেলোয়ার হোসেন। মামলায় অজ্ঞাতনামা আরও তিন জনকে আসামি করা হয়েছে।

গত ১৭ নভেম্বর ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান মো. নোমানের আদালতে মামলাটির আবেদন জমা েেদন ব্যবসায়ী মো. রহিম। এসময় আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ শেষে আদেশ পরে দিবেন বলে জানিয়েছেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী জাকির হোসেন হাওলাদার এ তথ্য জানান।

এজাহার থেকে জানা যায়, গত ১২ অক্টোবর ভিকটিম রহিম সন্ধ্যায় কাজ শেষে চরকালিগঞ্জ জেলা পরিষদ মার্কেট থেকে বাসায় ফিরছিলেন। রাত ৮টার দিকে দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থানার চুনকুটিয়া ব্রিজের ওপর আসলে অজ্ঞাতনামা তিনজন লোক তার গতিরোধ করেন। তারা নিজেদের ঢাকা জেলার ডিবি পুলিশ পরিচয় দেয়। রহিমের নামে ডিবিতে মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা আছে বলে জানায়। এরপর রহিমকে একটি দোকানে নিয়ে তল্লাশি করে তারা কিছু উদ্ধার করতে পারেনি। ওই অজ্ঞাতনামা তিন জন রহিমকে সিএনজিতে করে নিয়ে বাবু বাজার ব্রিজের কাছে নিয়ে যায়। সেখানে এসআই আনিসুল ইসলাম, এএসআই খায়রুল ইসলাম ও সোর্স দেলোয়ার উপস্থিত ছিল। এ তিন আসামি তাদের কাছ থেকে ৬৫০টি ইয়াবা ট্যাবলেট বের করে বলে এগুলো রহিমের কাছ থেকে পাওয়া গেছে।

এজাহারে আরও বলা হয়, যদি ফাঁসতে না চাস তাহলে ২ লাখ টাকা জোগাড় কর। না হলে মাদক ব্যবসায়ী সাজিয়ে মামলায় ফাঁসিয়ে দিবো। এ থেকে বাঁচার জন্য রহিম তার কাছে থাকা এক ভরি স্বর্ণের চেইন, নগদ ১৩ হাজার টাকা তুলে দেয়। এরপরে পরিবারের সাথে যোগাযোগ করে রহিম তাদের ৫০ হাজার টাকা দেয়। দাবিকৃত ২ লাখ টাকা দিতে না পারায় তার বিরুদ্ধে ১০ পিচ ইয়াবার মামলা দিতে আদালতে প্রেরণ করে। ১৭ দিন জেলে থেকে ৩০ অক্টোবর মুক্তি পান রহিম। মামলাটি আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদনও করা হয়েছিল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চাঁদাবাজির

৫ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন