Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯, ০৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

১০২১ জন সাংবাদিকের যৌথ বিবৃতি খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের সব মামলা প্রত্যাহারের দাবি

প্রকাশের সময় : ২৪ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তার ছেলে দলের সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়ের করা সব হয়রানিমূলক মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন ১০২১ জন সাংবাদিক।
গতকাল মঙ্গলবার এক যুক্ত বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ এ দাবি জানান। ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের একাংশের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ইনকিলাবকে এ তথ্য জানানো হয়।
বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নিম্ন আদালত থেকে বেকসুর খালাসপ্রাপ্ত বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মুদ্রা পাচার মামলায় সাজা দেয়ার ঘটনায় আমরা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি। আমরা অবিলম্বে এ সাজা প্রত্যাহারসহ তারেক রহমান এবং খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়রানিমূলক সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।
বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আমরা মনে করি, ভোটারবিহীন অবৈধ সরকার তারেক রহমানকে নির্বাচনে অযোগ্য করে রাজনীতি থেকে দূরে সরাতে উদ্দেশ্যমূলক ও প্রতিহিংসামূলকভাবে মুদ্রা পাচার মামলাটি করে। এ মামলায় তারেক রহমান বিচারিক আদালতে বেকসুর খালাস পান, কিন্তু সরকার দুদককে দিয়ে আপিল করায়।
বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আমরা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলতে চাই, সরকার যেভাবে তারেক রহমান ও বেগম খালেদা জিয়াসহ জিয়া পরিবার তথা জাতীয়তাবাদী শক্তির বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দিয়ে জাতীয়তাবাদী শক্তিকে নিঃশেষ করে দিতে চাচ্ছে, তা কখনো সফল হবে না। কারণ দেশের মানুষ উপলব্ধি করতে পারছে অবৈধ সরকার তার ক্ষমতা পাকাপোক্ত করার লক্ষ্যে জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন দিকে ফেরাতে এ ধরনের মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলাকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে।
বিবৃতিতে বলা হয়, বর্তমানে দেশে চরম রাজনৈতিক ক্রান্তিকাল চলছে। এ পরিস্থিতিতে যখন বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া দেশের সামগ্রিক স্বার্থে দলমত নির্বিশেষে জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছেন, ঠিক এ সময় তারেক রহমানের এই সাজা জাতীয় ঐক্যের বাধা হিসেবে কাজ করবে বলে আমরা মনে করি।
সরকারের বোধোদয় হবে এবং দেশের গণতন্ত্র ও উন্নয়নের স্বার্থে তারা সহনশীল আচরণ প্রদর্শন করবে বলে বিবৃতিতে আশা প্রকাশ করা হয়।
বিবৃতিদাতা সাংবাদিকদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেনÑআবুল আসাদ, আলমগীর মহিউদ্দিন, ড. রেজোয়ান হোসেন সিদ্দিকী, রুহুল আমিন গাজী, শওকত মাহমুদ, এম আবদুল্লাহ, এম এ আজিজ, কবি আবদুল হাই শিকদার, মোবায়েদুর রহমান, আবদুস শহিদ, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, সৈয়দ আবদাল আহমদ, মুহাম্মদ বাকের হোসাইন, মুন্সি আবদুল মান্নান, কাদের গণি চৌধুরী, কাজী রওনাক হোসেন, আবদুল আউয়াল ঠাকুর, নুরুল আমিন রোকন, মোহাম্মদ মোদাব্বের হোসেন, মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম, খন্দকার হাসনাত করিম, খুরশীদ আলম, মোহাম্মদ জাকির হোসেন প্রমুখ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ