Inqilab Logo

সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৩ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

আইনে পরিণত হলো ব্রেক্সিট বাণিজ্য আইন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০, ১০:২৬ এএম

আইনে পরিণত হয়েছে ব্রিটেন ও ইউরোপিয় ইউনিয়নের মধ্যকার ব্রেক্সিট পরবর্তী বাণিজ্য চুক্তি। ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সাংসদরা সমর্থন দেওয়ায় এটি আইনে পরিণত হয়। আজ বৃহস্পতিবার সকালে বিবিসি অনলাইন এ খবর প্রকাশ করেছে। বুধবার ব্রিটেনের সংসদ সদস্যরা সর্বসম্মতভাবে এই চুক্তিতে সমর্থন দিয়েছে। সংবাদমাধ্যম বিবিসি ও দ্য গার্ডিয়ান এ খবর জানিয়েছে।
চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি ব্রেক্সিট কার্যকর হয়। দীর্ঘ আলাপ আলোচনার পর বড়দিনের প্রাক্কালে বেক্সিট পরবর্তী বাণিজ্য চুক্তিতে সম্মত হয় ব্রিটেন ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন।
যুক্তরাজ্য ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ব্রেক্সিট-পরবর্তী বাণিজ্য চুক্তিতে একমত হওয়ার পর প্রয়োজন ছিল ইইউ নেতা, ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ও ব্রিটিশ সরকারের অনুমোদন। দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভোটাভুটিতে চুক্তিটির অনুমোদন দেন যুক্তরাজ্যের সংসদ সদস্যেরা। ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব কমন্সে উত্থাপন করা হলে সংসদ সদস্যদের ভোটে পাস হয় চুক্তিটি। এর সমর্থনে ভোট পড়ে ৫২১টি ও বিপক্ষে পড়ে ৭৩টি। এরপর হাউস অব লর্ডসেও চুক্তিটি পাস হয়। সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।
এই চুক্তিকে অনুমোদন দেওয়ার জন্য ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সংসদ সদস্যদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘এই দেশের নিয়তি এখন আমাদের হাতে রয়েছে।’
এর আগে এই চুক্তির ব্যাপারে লেবার পার্টির নেতা স্যার কেইর স্টারমার বলেছিলেন, কোনো চুক্তি না হওয়ার চেয়ে বরং এমন হালকা চুক্তি হওয়া ভালো।’ এরপর লেবার পার্টির বেশির ভাগ সংসদ সদস্যরা এই চুক্তির পক্ষে সমর্থন জানিয়েছেন।
এর আগে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লিয়েন ও ইউরোপীয় কাউন্সিলের সভাপতি চার্লস মিশেল গত বুধবার ব্রাসেলসে এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।
কয়েক মাস ধরে অনেক মতানৈক্যের পর গত সপ্তাহে ব্রেক্সিট-পরবর্তী বাণিজ্য চুক্তিতে একমত হয় যুক্তরাজ্য ও ইইউ। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও ইইউ প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লিয়েনের মধ্যকার বৈঠকে চূড়ান্ত চুক্তিতে পৌঁছানোর সিদ্ধান্ত হয়। সূত্র : বিবিসি ও দ্য গার্ডিয়ান



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ব্রেক্সিট


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ