Inqilab Logo

রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

১২০ মিনিটের লড়াইয়ে জিতল চট্টগ্রাম আবাহনী

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০১ এএম

শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রকে কাঁদিয়ে মৌসুমসূচক টুর্নামেন্ট ওয়ালটন ফেডারেশন কাপের সেমিফাইনালে জায়গা করে নিলো চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেড। আসরের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে ১২০ মিনিটের লড়াইয়ে জিতল তারাই। গতকাল বিকালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শেষ আটের ম্যাচে চট্টগ্রাম আবাহনী ২-০ গোলে হারায় শেখ রাসেলকে। বিজয়ী দলের হয়ে স্থানীয় ফরোয়ার্ড রাকিব হোসেন ও মান্নাফ রাব্বি একটি করে গোল করেন। কাল আবারো প্রমাণ হলো খেলায় সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে না পারলে ব্যর্থতার গ্লানি নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়। তাই তো পেনাল্টি মিস করে মাত্র ছয় মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল হজম করে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়ে শেখ রাসেল। আর প্রথম দল হিসেবে শেষ চারে উঠে যায় চট্টগ্রাম আবাহনী। হারের সঙ্গে রাসেলের কাপালে জোটে লালকার্ডও। প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়কে ঘুষি মারার অপরাথে লালকার্ড দেখতে হয় শেখ রাসেলের ফরোয়ার্ড তকলিস আহমেদকে।

কাল ম্যাচের নির্ধারিত সময়ে (৯০ মিনিট) শেখ রাসেল ও চট্টগ্রাম আবাহনী বেশ কয়েকটি সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি। বিশেষ করে ম্যাচের ৬৭ মিনিটে রাসেলের একটি সুযোগ ছিল নির্ঘাত গোল হওয়ার মতই। কিন্তু তারা তা কাজে লাগাতে পারেনি। গোলশূণ্যই কাটে ম্যাচের প্রথম ও দ্বিতীয়ার্ধ। ফলে ফলাফল নির্ধারণের জন্য অতিরিক্ত ৩০ মিনিট খেলা হয়। যেখানে বলতে হয় শেষ ১৫ মিনিট ছিল চট্টগ্রাম আবাহনীরই। এ সময়েই তারা বাজিমাত করে নকআউট পর্ব টপকায়।
আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে খেলা চললেও ম্যাচের ১৭ মিনিটে গোল করার দারুণ একটি সুযোগ পায় চট্টগাম আবাহনী। নিজেদের অর্ধে থেকে আইভরিকোস্টের মিডফিল্ডার চার্লস দিদিয়ের লং পাস খুজে নেয় মান্নাফ রাব্বিকে। দ্রুতগতিতে বক্সের মধ্যে ঢুকে পড়ে রাব্বি শট নিলে বল শেখ রাসেল গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানার পায়ে লেগে বাইরে চলে যায়। পরপর দু’টি কর্ণার আদায় করে রাসেলের ওপর চাপ সৃষ্টি করে কোচ মারুফুল হকের দল। ৯ মিনিট পর ফের আক্ষেপে পুড়তে হয় চট্টগ্রামের দলকে। ২৬ মিনিটে রাব্বির মাইনাসে বক্সের মধ্যে বল পেয়ে দিদিয়ের ডান পায়ে প্লেসিং শট নিলে তা বাইরে চলে যায়। তবে পেনাল্টি থেকে গোল করতে না পারায় শেখ রাসেলকে হতাশ করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড লোপেজ রদ্রিগেজ। ম্যাচের ৬৭ মিনিটে বক্সের মধ্যে বল নিয়ে ঢুকে পড়া রাসেলের নাইজেরিযান মিডফিল্ডার ওবি মোনেকেকে ফাউল করেন চট্টগ্রামের উজবেকিস্তান ডিফেন্ডার পুলাতোভ শুকুর আলী। রেফারি আনিসুর রহমান পেনাল্টির বাঁশি বাজান। কিন্তু পেনাল্টি শট থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন লোপেজ। তার শট ডান দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে রুখে দেন চট্টগ্রাম আবাহনীর গোলরক্ষক মো. নাঈম। নির্ধারিত সময়ে দু’দলই গোলের দেখা না পাওয়ায় ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। অতিরিক্ত ৩০ মিনিটের খেলাও আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ চালায় দু’দল। তবে সাফল্য পায় চট্টগ্রাম আবাহনী। ম্যাচের ১০৭ মিনিটে সতীর্থের কাছ থেকে বক্সের মধ্যে বল পান রাকিব হোসেন। ঠান্ডা মাথায় বাঁ পায়ের শটে গোল ক রেন তিনি (১-০)। ছয় মিনিট পর ফের গোলের আনন্দে মাতে চট্টগ্রামের আকাশী-হলুদরা। ম্যাচের ১১৩ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে চার্লস দিদিয়েরের বাড়ানো বল খুজে নেয় মান্নাফ রাব্বিকে। বক্সের মধ্যে ঢুকে পড়া রাব্বি দুই ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে গোল করে দলের জয় অনেকটাই নিশ্চিত করেন (২-০)। ম্যাচে বাকি সাত মিনিট শেখ রাসেলকে আলোমেলো ফুটবল খেলতে দেখা যায়। ফলে যা হবার তাই হয়েছে। হেরে আসরকে বিদায় নিতে হয় তাদের। তবে ম্যাচের অন্তিম সময়ে মেজাজ হারিয়ে চট্টগ্রাম আবাহনীর কাউসার আলী রাব্বির মুখে ঘুষি মারেন শেখ রাসেলের তকলিস। তাকে লাল কার্ড দেখাতে দেরি করনেনি রেফারি আনিসুর রহমান। ফলে লিগের প্রথম ম্যাচে খেলতে পারবেন না তকলিস।
চট্ট. আবাহনী ২
শেখ রাসেল ০



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চট্টগ্রাম-আবাহনী
আরও পড়ুন