Inqilab Logo

সোমবার, ০২ আগস্ট ২০২১, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮, ২২ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কুমিল্লায় সাবেক স্ত্রী হত্যায় স্বামীর মৃত্যুদন্ড

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৭ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০২ এএম

কুমিল্লার মুরাদনগরে সাবেক স্ত্রী আয়শা আক্তারকে ছুরিকাঘাতে হত্যায় আব্দুল কাদের নামের এক জনকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে আদালত। একই সাথে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ৪র্থ আদালতের বিচারক রোজিনা খান বুধবার এ রায় দেন।

মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আব্দুল কাদেরের বাড়ি দেবিদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ গ্রামে। ওই ঘটনায় গ্রেফতারের পর জামিনে বেরিয়ে এসে পলাতক আছেন। এ বিষয়টি জানান, আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) অ্যাড. মোয়াজ্জেম হোসেন। এ মামলায় আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাড. জালাল উদ্দিন টিপু।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, দেবিদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে আব্দুল কাদেরের সঙ্গে ২০০৫ সালে বিয়ে হয় একই উপজেলার রাজামেহার গ্রামের আবুল হোসেনের মেয়ে আয়শা আক্তারের। তাদের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। পারিবারিক কলহসহ নানা কারণে ২০১০ সালে তাদের মধ্যে বিয়ে বিচ্ছেদ হয়।

পরে আয়শা আক্তার নারায়নগঞ্জের একটি গার্মেন্টসে কাজ শুরু করেন। ২০১৩ সালের ১২ আগস্ট মায়ের সঙ্গে নানার বাড়ি গুনাইঘর থেকে নিজ বাড়ি ফেরার পথে মুরাদনগর উপজেলার উরিশ্বর বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে আয়শা আক্তারের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় আব্দুল কাদের। ওই সময় আয়শা আক্তারের বুকে ও পেটে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে সে। হামলার সময় সাথে থাকা তার মা মাজেদা আক্তারের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে গিয়ে আব্দুল কাদেরকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। প্রচুর রক্তক্ষরণের কারণে হাসপাতালে নেয়ার পথেই আয়শা আক্তারের মৃত্যু হয়। এ ঘটনার নিহতের বাবা আবুল হোসেনের করা হত্যা মামলায় জামিনে বেরিয়ে গা ঢাকা দেয় আব্দুল কাদের।

ওই মামলায় ২০১৩ সালের ১৫ ডিসেম্বর আব্দুল কাদেরকে একমাত্র আসামি করে অভিযোগপত্র দেয় মুরাদনগর থানা পুলিশ। এরপর দীর্ঘ সময়ের মধ্যে মামলার ১৩জন স্বাক্ষী তাদের সাক্ষ্য প্রদান করেন। প্রায় সাড়ে সাত বছর পর বুধবার ওই মামলার রায় দিলেন আদালত।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্বামীর-মৃত্যুদন্ড
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ