Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৭ রজব ১৪৪২ হিজরী

ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রটোকল জমা দিয়েছে

গ্লোব বায়োটেক ভ্যাকসিন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

গ্লোব বায়োটেক তাদের উদ্ভাবিত করোনা ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রটোকল জমা দিয়েছে। বাংলাদেশ মেডিক্যাল রিসার্চ কাউন্সিলে (বিএমআরসি) গতকাল রোববার প্রটোকল জমা দেওয়া হয়। এর মাধ্যমে ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ইথিক্যাল অ্যাপ্রুভাল বা ইথিক্যাল ক্লিয়ারেন্সের জন্য আবেদন করা হলো।

গ্লোব বায়োটেকের গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের প্রধান ড. আসিফ মাহমুদ বলেন, গ্লোব বায়োটেকের পক্ষে তাদের সিআরও (ক্লিনিক্যাল রিসার্চ অর্গানাইজেশন) এ প্রটোকল জমা দেয়া হয়েছে। বিএমআরসিতে ২০টি ফাইলে ক্লিনিকাল ট্রায়ালের প্রোটোকল জমা দেওয়া হয়। আবেদনে একসঙ্গে প্রথম ও দ্বিতীয় ট্রায়ালের অনুমোদন চাওয়া হয়েছে।

জানা যায় গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের চেয়ারম্যান মো. হারুনুর রশিদসহ গ্লোব বায়োটেকের কর্মকর্তারা বিএমআরসিতে যান। পুরো প্রটোকলসহ প্রায় ১০ হাজার পৃষ্ঠার আবেদন জমা দেন তারা। আর বিএমআরসির পক্ষে একজন সহকারী পরিচালক তাদের আবেদন গ্রহণ করেন।

ড. আসিফ মাহমুদ জানান, তাদের পক্ষে সিআরও লিমিটেড নামের একটি কোম্পানি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের কাজটি করবে। আর অনুমোদন হলে একটি সরকারি হাসপাতালে এই ট্রায়াল দেওয়া হবে।
২০২০ সালের ২৮ ডিসেম্বর গ্লোব বায়োটেককে পরীক্ষাম‚লক প্রয়োগের জন্য করোনাভাইরাসের টিকা উৎপাদনের অনুমতি দেওয়া হয়।

শুরুর দিকে গ্লোবের এই টিকার নাম ব্যানকোভিড থাকলেও সেটি পরিবর্তন করে বঙ্গভ্যাক্স নাম রাখা হয়।
বিশ্বে যেসব টিকা তৈরির কাজ করা হচ্ছে সেগুলো পর্যবেক্ষণ করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তালিকায় ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল পর্যায়ে রয়েছে ৪২টি টিকা আর প্রি-ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল অর্থাৎ ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের আগের অবস্থায় রয়েছে ১৫৬টি টিকা। এই তালিকায় বাংলাদেশের গ্লোব বায়োটেকের নাম রয়েছে।

গ্লোবের বায়োটেকের চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ জানান, ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে জন্য আইসিডিডিআর,বি’র সঙ্গে সমঝোতা চুক্তি (এমওইউ) থাকলেও ২০২০ সালের পহেলা ডিসেম্বর আইসিডিডিআর,বি’র অনাগ্রহের অভিযোগ তুলে তাদের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করে গ্লোব।

মানবদেহে বঙ্গভ্যাক্সের পরীক্ষামূলক প্রয়োগের এই গবেষণায় কাজ করবেন ৫৭ জনের একটি দল। যার প্রধান অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব জানান, অনুমোদন পাওয়ার ১০ দিনের মধ্যেই ট্রায়াল শুরু করতে পারবেন তারা। শতাধিক স্বেচ্ছাসেবকের ওপর এটা প্রয়োগের পরিকল্পনা তাদের।
গ্লোব বায়োটেক তাদের এ ভ্যাকসিনের নাম দিয়েছে বঙ্গভ্যাক্স। বাংলাদেশে কোনও ভ্যাকসিনের ফেইজ-১-এর ট্রায়াল হবে। এটা আমাদের জন্য মাইলফলক বলে দাবির করেছেন ড. আসিফ মাহমুদ।

এর আগে ২০২০ সালের ২ জুলাই প্রতিষ্ঠানটি দেশে প্রথম ভ্যাকসিন আবিষ্কারের ঘোষণা দেয়। সেদিন তারা জানায়, গত ৮ মার্চ তারা এই টিকা আবিষ্কারের কাজ শুরু করেন। ওই বছরের ৫ অক্টোবর গ্লোব জানায়, তারা সফলভাবে প্রাণী দেহে তাদের ট্রায়াল সম্পন্ন করেছেন। এখন হিউম্যান ট্রায়ালে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত। আসিফ মাহমুদ জানান, বিএমআরসি’র অনুমোদন পেলেই তারা হিউম্যান ট্রায়াল শুরু করবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

২ মার্চ, ২০২১
২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ