Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৬ রজব ১৪৪২ হিজরী

ভোট জিততেই বালাকোটে হামলা করেছিলেন মোদি- তথ্য ফাঁস, ইমরান খানের নিন্দা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০২১, ৩:২৫ পিএম

সীমান্ত সন্ত্রাস নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই পাকিস্তানকে কাঠগড়ায় তুলে আসছে ভারত। কিন্তু ভারতের মোদি সরকার নিজেই ভোট জিততে বালাকোটে হামলা করেছিলেন। সম্প্রতি ভারতের রিপাবলিক টিভি-র প্রধান সম্পাদক অর্ণব এ ঘটনায় কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

অর্ণব গোস্বামী এবং টিআরপি জালিয়াতি মামলায় ধৃত রেটিং সংস্থা ‘ব্রডকাস্ট অডিয়েন্স রিসার্চ কাউন্সিল’ (বিএআরসি) এর সাবেক সিইও পার্থ দাশগুপ্তের কথোপকথনে বালাকোট নিয়ে আলোচনা সামনে এসেছে। সোমবার সকালে পর পর টুইট করে এই প্রসঙ্গে ইমরান খান কড়া সমালোচনা করেন নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন ভারত সরকারকে। তিনি লেখেন, ‘২০১৯ সালে জাতিসংঘের সাধারণ সভাতেই জানিয়েছিলাম, ফ্যাসিবাদী মোদি সরকার বালাকোট সঙ্কটকে ব্যবহার করে অভ্যন্তরীণ নির্বাচনে ফায়দা তুলেছে। যুদ্ধে প্ররোচনা জোগানো তাদের এক সাংবাদিকের কথোপথন গণমাধ্যমে ফাঁস হয়ে গিয়েছে। তাতে মোদি সরকার এবং ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের মধ্যেকার অসাধু যোগসূত্র এখন স্পষ্ট।’ অপর টুইটে তিনি লেখেন, ‘পাকিস্তানে সন্ত্রাসবাদী কাজকর্মে মদত দেয়া হচ্ছে। ভারত অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরে ক্ষমতার অপব্যবহার হচ্ছে। ১৫ বছর ধরে গোটা বিশ্বে আমাদের বদনাম করার যড়যন্ত্র হয়েছে। এই সব এখন পানির মতো পরিষ্কার। যে ভয়ঙ্কর ষড়যন্ত্র দুই পরমাণু শক্তিধর রাষ্ট্রের মধ্যেকার সঙ্ঘাতকে খাদের কিনারায় ঠেলে দিচ্ছে, তা ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলিতেই উঠে এসেছে।’ এর পর আরও এক টুইটে তিনি লেখেন, ‘আবারও বলব যে, পাকিস্তানের প্রতি ভারতের যুদ্ধভাবাপন্ন মনোভাব এবং মোদি সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণের পর্দাফাঁস করবে আমার সরকার। ভারতের এমন বেপরোয়া আচরণ, আগ্রাসী মনোভাব এখনই রুখতে হবে আন্তর্জাতিক মহলকে। নইলে এই সঙ্ঘাত গোটা উপমহাদেশকে এতটাই খাদের কিনারায় পৌঁছে দেবে যে, তা নিয়ন্ত্রণ করা অসম্ভব হয়ে দাঁড়াবে। ’

২০১৯-এ পুলওয়ামা হামলার জবাবে বালাকোট ও পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায় ভারতীয় সেনা। তাতে ৩০০-র বেশি জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে এবং ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ভারতের তরফে দাবি করা হলেও, কয়েকটা গাছ ওপড়ানো ছাড়া ভারতীয় বায়ুসেনা তেমন কিছু করতে পারেনি বলে দাবি করে আসছে পাকিস্তান। সেই নিয়ে বিতর্ক চলছে। এর মধ্যেই পার্থ দাশগুপ্তের সঙ্গে অর্ণবের একটি হোয়াটসঅ্যাপ কথোপকথন সামনে এসেছে। তা ওই মামলায় মুম্বই পুলিশের পেশ করা চার্জশিটের অঙ্গ। চার্জশিট অনুযায়ী, ২৩ ফেব্রুয়ারি পার্থর সঙ্গে কথোপকথনের সময়ে অর্ণব পুলওয়ামা হামলার পরে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহের প্রথম সাক্ষাৎকার রিপাবলিক টিভি-তে সম্প্রচার নিয়ে ফলাও করে কথাবার্তা বলেন। তার পরেই তিনি বলেন, ‘বড় একটা কিছু হবে।’ পার্থ জানতে চান, দাউদ প্রসঙ্গে কোনও পদক্ষেপ করবে সরকার? অর্ণব জবাবে জানান, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বড় অভিযান চালাবে ভারত। সেইসঙ্গে কাশ্মীরেও বড় পদক্ষেপ নেবে সরকার। পার্থ জানান, এটা ‘বিগ ম্যান’-এর পক্ষে ভালই হবে। দেশবাসী খুশি হবেন। তিনি ভোটে বড় জয় পাবেন।

এ ঘটনায় নতুন করে বিতর্ক শুরু হয়েছে। এতে স্পষ্ট যে ভারতের সেনা বালাকোটে অভিযান চালাতে চলেছে, সে কথা আগে থেকেই জানতেন অর্ণব। কিন্তু গোয়েন্দাদের গোপন তথ্য আগেই অর্ণবের কাছে গিয়ে পৌঁছল কী ভাবে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। বিরোধীদের অভিযোগ, ২৩ ফেব্রুয়ারির ওই কথোপকথন থেকে স্পষ্ট যে, অর্ণব পাকিস্তান সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য জানতেন। অর্থাৎ সরকারের কোনও শীর্ষ কর্তা গোপন তথ্য ফাঁস করেছিলেন। টিআরপি বাড়ানোর জন্য সেনাদের জীবনের ঝুঁকি বাড়ানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেয়ার অনুরোধও জানিয়েছেন অনেকে। সূত্র: আল-জাজিরা, দ্য উইক।



 

Show all comments
  • Monjur Rashed ১৮ জানুয়ারি, ২০২১, ৩:৫৭ পিএম says : 0
    No smoke emits without fire. One day, secularism will be erased from Indian constitution due to fanatic political instigation.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ