Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৭ রজব ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কেডিএস গ্রুপের রোষানলে আমার গোটা পরিবার

সংবাদ সম্মেলনে মুনির হোসেন খান

চট্টগ্রাম ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

 কেডিএস গ্রুপের রোষানলে পড়ে অশতিপর বৃদ্ধ পিতাসহ গোটা পরিবার চরম সঙ্কটে উল্লেখ করে ২৮টি মিথ্যা মামলা থেকে মুক্তির আকুতি জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সাবেক কর্মকর্তা মুনির হোসেন খান। তিনি বলেন, আমাকে মিথ্যা মামলা থেকে রেহাই দিন। আমি পরিবার নিয়ে শান্তিতে বাঁচতে চাই। গতকাল মঙ্গলবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ আকুতি জানান আমেরিকা ফেরত কেডিএস গ্রুপের কেওয়াই স্টিল মিলের সাবেক এ পরিচালক।
তিনি বলেন, আমেরিকায় মোটা বেতনে চাকরি এবং উন্নত জীবন ফেলে শুধুমাত্র দেশের টানে তিনি ফিরে আসেন। কেডিএস গ্রæপের মালিকের পুত্র এবং তার বন্ধু সেলিম রহমানের অনুরোধে তাদের প্রতিষ্ঠানে যোগ দেন। ১১ বছরের বেশি সময় মেধা এবং শ্রমে এ প্রতিষ্ঠানকে গড়ে তোলেন তিনি। মালিক পক্ষের অপমানজনক আচরণে চাকরি ছেড়ে দেয়ার প্রায় এক বছর পর তার বিরুদ্ধে কেডিএস গ্রুপ একের পর এক মামলা দিতে থাকে। এসব মামলায় তিনি এক বছর কারাভোগ করেন। ২৮টি মামলা ভিত্তিহীন, মিথ্যা এবং জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে সাজানো উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাদের টাকার জোরের কাছে আজ আমি বিপন্ন। আমার পরিবার মহাসংকটে। আমার অশীতিপর পিতাকেও তারা মামলায় জড়িয়েছে। মামলায় জড়িয়েছে আমার ছোট ভাই এবং আমার স্ত্রীকেও। আমার এবং আমার পরিবারের কষ্টের কথা জাতির বিবেকের কাছে জানাতে এ সংবাদ সম্মেলন।
দীর্ঘ ১৭ বছর প্রবাস জীবনে সততার সাথে কাজ করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, কখনো দুর্নীতি করিনি। কিন্তু কেডিএস কর্তৃপক্ষ আমার বিরুদ্ধে ৬শ কোটি টাকা দুর্নীতির অভিযোগ এনেছে। যা ভিত্তিহীন এবং কাল্পনিক। স্টিলের কাঁচামাল ক্রয়ের নামে টাকা আত্মসাতের অভিযোগও বানান। কারণ এ ধরনের কেনাকাটার লেনদেন এলসি এবং ব্যাংকের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়। মিথ্যা মামলা সাজাতে গিয়ে তারা জাল-জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি। তিনি এবং তার পরিবারের সদস্যদের নামে মিথ্যা মামলা দেয়ার পাশাপাশি পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে তাদের সম্মানহানি করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। এর ফলে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হওয়ার পাশাপাশি চরম নিরাপত্তাহীনতায় তার পরিবারের সদস্যদের দিন কাটছে বলে জানান মুনির হোসেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পরিবার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ