Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

ফরিদপুরে নারী কেলেঙ্কারি মামলায় আটক আমিনুল ইসলাম বাবু

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০২১, ১১:৫৫ এএম

ফরিদপুর ল্যাব এইড এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সাবেক ম্যানেজার ও ডেইলি অবজারভার এর ফরিদপুর প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম বাবু এক নারী কেলেঙ্কারি মামলায় আদালতে জামিন চেয়ে হাজিরা দিতে এসে আদালত জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণ করেছে।

বাবু ল্যাব এইডের ম্যানেজার থাকাবস্থায় সান্তা নামের এক সন্তানের জননীকে চাকুরী দিয়ে তাকে নানাভাবে ফাদে ফেলানোর চেষ্টা করে। পরে একপযার্য়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌনাচারন করে।

এঘটনা নিয়ে বাবু বিবাহ করবে মর্মে লোভ-লালসা দেখায় এবং ভুয়া কাজীর মাধ্যমে সান্তাকে বিয়ে করে এবং শহরের ৩/৪ টি বাসা বদল করে রাখে ও স্বামী স্ত্রী হিসেবে বসবাস করে।

এদিকে এক সন্তানের জননী সান্তাকে খুজে না পেয়ে তার পুর্বের স্বামী কোতয়ালী থানায় জিডি করে। ঘটনাটি জানাজানি হলে তার স্বামী তাকে তালাক প্রদান করে।

মেয়েটি অসহায় অবস্থায় কোন গতি না পেয়ে মানবাধিকার সংগঠন আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) বরাবর বাবুর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়ে আইনী সহায়তা চান।

এদিকে প্রাথমিক তদন্ত করে অভিযোগের বিষয় সত্যতা পাওয়া যায় এবং ফরিদপুর আদালতে মামলা দায়ের করা হয়।

আদালত পিবিআইকে তদন্তের র্নিদেশ দেন। পিবিআই তদন্ত রিপোর্ট আদালতে দায়ের করলে আদালত ওয়ারেন্ট ইস্যু করেন।

মঙ্গলবার দুপুরে বাবু আদালতে এসে আত্নসর্মপন করে জামিন চাইলে আদালত জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণ করে।

উল্লেখ গত ২০/০৭/২০ ইং তারিখে সান্তা আদালতে মামলা করেন।যার মামলা নং-২৪৩/২০ এবং পিটিশন নং-১৪৫/২০ইং।

এদিকে ওয়ারেন্ট থাকাবস্থায় মামলার বাদিনী সান্তাকে ব্লাকমেইল ও বিভিন্ন লোক মাধ্যমে ভয়-ভীতি দেখিয়ে মামলা প্রত্যাহার করার জন্য চাপ সৃষ্টি করে আসছিল। এছাড়াও অসংখ্য নারী কেলেঙ্কারীর সাথে যুক্ত এই বাবু। এখনও তাকে চাপের মুখে রেখেছে দাবি সান্তার।
সান্তা এখন সন্তানকে নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ