Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৭ রজব ১৪৪২ হিজরী

ব্যক্তিগত নীতি প্রত্যাহার করতে হোয়াটসঅ্যাপকে মোদি সরকারের চিঠি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০২১, ৪:০২ পিএম

হোয়াটসঅ্যাপের নতুন ব্যক্তিগত গোপনীয়তা নীতি প্রত্যাহার করা নিয়ে ফেসবুক মালিকানাধীন মেসেজিং অ্যাপকে চিঠি দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় ইলেকট্রনিক্স ও ইনফরমেশন টেকনোলজি মন্ত্রণালয় হোয়াটসঅ্যাপের সিইও উইল ক্যাটকার্টকে চিঠি লিখে ভারতীয় ব্যবহারকারীদের জন্য এই নীতি তুলে নিতে বলেছে। পাশাপাশি, সরকার গোপনীয়তা নীতি, ডেটা লেনদেন ও শেয়ারিং নীতি সংক্রান্ত বিষয়গুলি জানতে চেয়েছে সিইওর কাছে।

হোয়াটসঅ্যাপের গোপনীয়তা নীতি অনুসারে, এই মেসেজিং অ্যাপে শেয়ার করা তথ্য ফেসবুকে চলে যাবে, এই প্রস্তাব দেয়ার পরই ভারতের সরকার তথ্য সুরক্ষা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। ফেসবুকের কাছে শেয়ার করা এই তথ্য ব্যবাহারকারীদের ঝুঁকির মুখে ফেলতে পারে বলে মনে করছে সরকার। এমনকী হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের এই নীতি মানতে বাধ্য করছে, নয়ত অ্যাকাউন্ট মুছে যাবে বলে জানিয়েছে তারা, সরকার এই বিষয়টিতে আপত্তি জানিয়েছে। মন্ত্রণালয়ের মতে, ব্যবহারকারীদের জন্য কোনও বিকল্প রাখেনি হোয়াটসঅ্যাপ। এ প্রসঙ্গে মন্ত্রণালয় পুত্তস্বামী বনাম ইউনিয়ন অফ ইন্ডিয়া (২০১৭) মামলায় গোপনীয়তা এবং সম্মতির নীতি সম্পর্কে সুপ্রিম কোর্টের রায় হোয়াটসঅ্যাপকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে হোয়াটসঅ্যাপকে আরও জিজ্ঞাসা করা হয়েছে যে, যখন ভারতের সংসদ ইতিমধ্যে ব্যক্তিগত ডেটা সুরক্ষা বিলটি বিবেচনা করছে তখন তারা কেন এ জাতীয় উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনল? ইউরোপ ও ভারতের ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা ব্যক্তিগত নীতি নিয়েও আপত্তি জানিয়েছে সরকার। বিশ্বের মধ্যে ভারতে হোয়াটসঅ্যাপের ব্যবহারকারী সবচেয়ে বেশি, অথচ এই দেশের ব্যবহারকারীদের সঙ্গে এ ধরনের বৈষম্যমূলক আচরণ করায় হোয়াটসঅ্যাপের প্রতি অশ্রদ্ধা বাড়ছে ভারতীয় নাগরিকদের। এই প্রসঙ্গে, সরকার হোয়াটসঅ্যাপকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছে যে ভারতীয় নাগরিকের স্বার্থ রক্ষার সার্বভৌম অধিকার রয়েছে এবং এটি কোনও মূল্যে এ বিষয়ে কোনও আপস করবে না।

প্রসঙ্গত, রবিবার সকালে নিজেদের অ্যাকাউন্ট থেকে ‘স্ট্যাটাস' দেয় হোয়াটসঅ্যাপ। ওই স্ট্যাটাসে তারা লেখে আমরা গোপনীয়তা বজায় রাখতে বদ্ধ পরিকর। এন্ড-টু-এন্ড ইনক্রিপশন আছে তাই হোয়াটসঅ্যাপ ব্যক্তিগত মেসেজ পড়তে বা শুনতে পায় না। সূত্র: অ্যান্ড্রয়েড অথরিটি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন