Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৪ রজব ১৪৪২ হিজরী

দুর্ঘটনার কবলে পটুয়াখালী-ঢাকা রুটের কুয়াকাটা লঞ্চ

চালকের দক্ষতায় প্রাণবেচে গেল ৫ শতাধিক যাত্রীর

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২২ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:৫০ পিএম

পটুয়াখালী-ঢাকা নৌ-রুটে চলাচলকারী বিলাস বহুল ‘কুয়াকাটা-১’ দোতলা লঞ্চের সাথে বালু ভর্তি বাল্ক হেডের সাথে ধাক্কা লেগে লঞ্চের সামনের দিকে ফেটে পানি প্রবেশ করে, এ সময় চারজন শ্রমিক ক্রু সহ বাল্ক হেডটি ডুবে গেলেও কোন প্রাণহানি ঘটেনি, বাল্ক হেডের ক্রু শ্রমিকরা সাঁতরিয়ে উঠতে সক্ষম হয়।লঞ্চ চালকের চালকের দক্ষতায় প্রাণে বেঁচে যায় লঞ্চের ৫ শতাধিক যাত্রী।

পটুয়াখালী নদীবন্দরের বন্দর কর্মকর্তা সহকারী পরিচালক খাজা সাদিকুর রহমান জানান, সন্ধ্যা সাতটার দিকে ঢাকা থেকে পটুয়াখালীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা লঞ্চটি চাঁদপুরের কাছে মেঘনা নদীতে বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার আমিরাবাদ এলাকায়এলাকায় একটি বালুভর্তি বাল্ক হেডের সাথে ধাক্কা লাগে, এতে লঞ্চের সামনের দিকের ডান পাশে ক্ষতিগ্রস্থ হয় লঞ্চে পানি প্রবেশ করতে শুরু করে, চালক লঞ্চটিকে দ্রুত নদীর চরে তুলে দিলে প্রাণে বেঁচে যায় যাত্রীরা।

পটুয়াখালী নদী বন্দরের সহকারি পরিচালক খাজা সাদিকুর রহমান আরোও জানান, রাতের বেলা নৌরুটে কোন ধরনের বাল্কহেড বা কার্গো চলাচল নিষিদ্ধ রয়েছে। লঞ্চটি বর্তমানে চাঁদপুর নৌ-পুলিশের হেফাজতে রয়েছে, এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।দুর্ঘটনা কবলিত লঞ্চের সকল যাত্রীদের উদ্ধার করে মর্নিংসান-৫’ নামের আরেকটি লঞ্চ আজ শুক্রবার বেলা সাড়ে ১০ টার দিকে ঘটনা স্থল থেকে পটুয়াখালীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছে, বিকেল তিনটে নাগাদ লঞ্চের পটুয়াখালীতে পৌঁছবে।
এম ভি কুয়াকাটা ১-লঞ্চের মাস্টার কামরুল জানান ,ঢাকা থেকে পটুয়াখালী আসার পথে মেঘনা নদীর আমিরাবাদ এলাকায় মাঝনদীতে একটি একটি বালু বোঝাই বাল্কহেড ডান পাশ দিয়ে লঞ্চের সাথে সজোরে আঘাত করে, এতে কুয়াকাটা -১লঞ্চের ডান পাশের সামনের অংশে ক্ষতিগ্রস্ত হয় লঞ্চের ভিতরে পানি প্রবেশ করতে শুরু করে, তাৎক্ষণিক তারা লঞ্চ টিকে কিনারে নিয়ে যেতে সক্ষম হন।

ওই লঞ্চের একজন যাত্রী গলাচিপার আমখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু জাফর জানান, লঞ্চটি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে ঢাকার সদর ঘাট থেকে পটুয়াখালীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। রাত অনুমান ১০ টার দিকে লঞ্জটি চাঁদপুরের কাছে মেঘনা নদীতে একটি বালুভর্তি বলগেটের সাথে সজোরে ধাক্কা খায় এতে লঞ্চটির তলার কিছু অংশ ফেটে লঞ্চের মধ্যে পানি প্রবেশ করতে শুরুরু করে। এসময় যাত্রীরা আর্ত-চিৎকার শুরু করেন। চালক দ্রুত লঞ্চটি নদীর চরে তুলে যাত্রীদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসে।

সারা রাত লঞ্চটি সেখানে অবস্থানের পর আজ সকাল ৮ টার দিকে ঢাকা থেকে মর্ণিং সান-৫ নামের আরেকটি লঞ্চ সেখানে আসে এবং দুর্ঘটনা কবলিত লঞ্চটির সকল যাত্রীদের নিয়ে সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে পটুয়াখালীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লঞ্চ


আরও
আরও পড়ুন