Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৬ রজব ১৪৪২ হিজরী

১০ কোটি পণ্য উৎপাদনের মাইলফলক স্পর্শ করলো হিরো মোটোকর্প

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ জানুয়ারি, ২০২১, ৬:১৭ পিএম

একমাত্র ভারতীয় অটোমোটিভ উৎপাদক প্রতিষ্ঠান হিসেবে এই সাফল্য অর্জন করার মাধ্যমে নিজস্ব ভিশন ‘বি দ্য ফিউচার অব মোবিলিটি’ অর্জনে আরও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হলো প্রতিষ্ঠানটি। হিরো মোটোকর্পের চেয়ারম্যান এন্ড সিইও ড. পাওয়ান মুঞ্জাল বলেন, ‌হিরো মোটোকর্প কয়েক লক্ষ্য পূরণের মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে মানুষের পথচলাকে সামনে থেকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। এই সাফল্যের মূলে রয়েছে এর ক্রমবিকশিত প্রকৌশলগুণ, চমৎকার ব্যবহারযোগ্যতা এবং টেকসই চর্চা। এছাড়াও সততা এবং বিশ্বাসের মধ্য দিয়ে এই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে গড়ে ওঠা এক সামগ্রিক পরিম-লও এই সাফল্য এনে দিয়েছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হচ্ছে- এটা হিরো মোটোকর্পের গ্রাহকদের জন্য একটি উদযাপনের উপলক্ষ্য, যারা পাশে থেকে ভালবাসা এবং বিশ্বাসে আমাদেরকে সিক্ত করেছেন।'


তিন আরো বলেন, ‌এই উল্লেখযোগ্য অর্জন ভারত এবং হিরো’র ব্র্যান্ডের আবেদনের সহজাত সক্ষমতারই বহিঃপ্রকাশ নিশ্চিত করেছে। ভারতে আমরা সারাবিশ্বের জন্য পণ্য তৈরি করছি এবং গ্রাহকের পছন্দকে মাথার রেখে করা আমাদের কাজ এবং এই অর্জন ভৌগোলিক, জনসংখ্যা এবং প্রজন্মকেও অতিক্রম করে। আমরা আমাদের উৎপাদন বৃদ্ধির যাত্রা অব্যাহত রাখছি। আমাদের ভিশন- ‘গতিশীলতার ভবিষ্যত’ অনুযায়ী আগামী ৫ বছরে নতুন নতুন মোটরসাইকেল এবং স্কুটারের উদ্বোধন করবো এবং আর্ন্তজাতিক বাজারে আমাদের বিস্তারও আরো বাড়বে। এছাড়াও আমরা গবেষণা ও উন্নয়নে বিনিয়োগ অব্যাহত রাখবো এবং গতিশীলতার নতুন নতুন সমাধানে কাজ করে যাবো।'

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মোটরসাইকেল ও স্কুটার উৎপাদক প্রতিষ্ঠান হিসেবে ১০ কোটি পণ্য উৎপাদনের মাইলফলক স্পর্শ করলো হিরো মোটোকর্প। ১০ কোটিতম বাইক হিসেবে এখন উত্তর ভারতের প্রদেশ উত্তরখ-ের হার্ডিওয়ারে উৎপাদন করা হচ্ছে- দ্য এক্সটিম ১৬০আর।

নিচের লিংকগুলোতে ক্লিক কওে #১০ কোটি হিরোস (#১০০ মিলিয়ন হিরোস) ইভেন্টটি দেখা যাবে-

http://100million.heromotocorp.com/

https://www.youtube.com/user/TheHeromotocorp

https://www.facebook.com/HeroMotoCorpIndia/

এই বছরটি হিরো মোটোকর্পের জন্য আরও একটি কারণে বিশেষ গুরুত্ববহ, কারণ মোটরবাইক তৈরিতে বিশ্বের বৃহত্তম উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান হবার সম্মানজনক খেতাবটি টানা ধরে রাখার ক্ষেত্রে এবছর ২০ বছর পূর্ণ করলো প্রতিষ্ঠানটি।

হিরো মোটোকর্পের এই অর্জনটি বিশ্বের ইতিহাসে দ্রুতততম সময়ের মধ্যে ১০ কোটি উৎপাদন মাইলফলক স্পর্শ করা অর্জনগুলোর একটি, যেখানে মাত্র ৭ বছরের ব্যবধানেই প্রায় ৫ কোটি ইউনিট উৎপাদন বেড়েছে।

টেকসই প্রবৃদ্ধির প্রতি গুরুত্ব দিয়ে হিরো মোটোকর্প সারাবিশ্বের মানুষের মধ্যে কাজ করে যাচ্ছে এবং নিজের বিক্রয়, গবেষণা-উন্নয়ন ও উৎপাদন কার্যক্রমের মাধ্যমে অর্থনৈতিক উন্নয়নের গুণক হিসেবে ভূমিকা পালন করছে। যেসব জনগোষ্ঠীর মধ্যে হিরোমোটো কর্প তাদের ব্যবসা পরিচালনা করে, তাদের জীবনমান উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক অগ্রগতিতেও ভূমিকা রাখে প্রতিষ্ঠানটি।

১০ কোটির মাইলফলক স্পর্শ উপলক্ষ্যে দিল্লির গুরুগ্রামে অবস্থিত কোম্পানির নিজস্ব কারখানায় গাড়ির ছয়টি বিশেষ সংস্করণের মডেল উন্মোচন করেন হিরো মোটোকর্পের চেয়ারম্যান এবং সিইও ড. পাওয়ান মুঞ্জাল। এই ছয়টি বিশেষ সংস্করণের মধ্যে রয়েছে-স্পেøন্ডার+, এক্সট্রিম ১৬০আর, প্যাশন প্রো, গ্লামার (মোরসাইকেল), ডেসটিনি ১২৫ এবং মায়েস্ত্রো এজ ১১০ (স্কুটার)। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসেই বিশেষ সংস্করণের এসব মডেলের গাড়ি বাজারে পাওয়া যাবে।

সারাবিশ্বের গ্রাহক, সরবরাহকারী, বিতরণকারী, বিনিয়োগদাতা, কর্মী এবং গণমাধ্যমের উদ্দেশ্য দেওয়া এক ভাষণে হিরো মোটোকর্পের পরবর্তী পাঁচ বছরের পরিকল্পনা এবং লক্ষ্যমাত্রা তুলে ধরেন ড. মুঞ্জাল।

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে কোম্পানিটি তাদের অবস্থানকে আরও সুদৃঢ় অবস্থায় নিতে চায়। এক্ষেত্রে নতুন নতুন পণ্য ও উদ্ভাবন বাজারে আনার মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী নিজস্ব ব্যবসার পরিধি বাড়ানোর লক্ষ্যে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবে হিরো মোটোকর্প।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, আগামী পাঁচ বছরে কোম্পানিটি ১০টিরও বেশি পণ্য বাজারে ছাড়বে। এছাড়া প্রতিবছরই নতুন নতুন একাধিক মডেলের পাশাপাশি পুরান মডেল আধুনিকায়ন করা হবে।

ভারতের বাইরের বাজারেও নিজস্ব ব্যবসার পরিধি ও প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে হিরো মোটোকর্পের। পুরাতন বাজারগুলোর ব্যবসা বাড়ানোর পাশাপাশি নতুন নতুন দেশে ব্যবসায়িক কার্যক্রম শুরু করবে কোম্পানিটি।

পরিবেশবান্ধব পদক্ষেপ ও তেল-সাশ্রয়ী পণ্যের মাধ্যমে কার্বন নিঃসরণের হার কমানোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে হিরো মোটোকর্প। অভ্যন্তরীন প্রোগ্রামগুলোর মাধ্যমে নতুন মোবিলিটি সল্যুশনের প্রসারে কাজ করার পাশাপাশি এটি বাস্তবায়নে অন্যদেরকেও সাহায্য করবে কোম্পানিটি।

১০ কোটি উৎপাদনের মাইলফলক স্পর্শের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস:-
১৯৯৪- ১০ লাখ
২০০১- ৫০ লাখ
২০০৪- ০১ কোটি
২০০৮- ২ কোটি ৫০ মিলিয়ন
২০১৩- ৫ কোটি
২০১৭- ৭ কোটি ৫০ লাখ
২০২১- ১০ কোটি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ