Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৬ রজব ১৪৪২ হিজরী

টঙ্গীতে মসজিদে ঢুকে তাবলীগের সা’দপন্থীদের ওপর জোবায়েরপন্থীদের হামলা

স্থানীয় আমিরসহ আহত ১০

গাজীপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১, ৮:০১ পিএম

টঙ্গীতে মসজিদে ঢুকে তাবলীগ জামাতের সা’দপন্থীদের ওপর হামলা চালিয়েছে জোবায়েরপন্থীরা। গত সোমবার রাতে টঙ্গী ইসলামপুর (দত্তপাড়া) আলম মার্কেট এলাকায় বায়তুস সালাম জামে মসজিদে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে এবং গুরুতর আহত ২ জনকে হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে বলে দাবী করেছে সা’দপন্থীরা। এ ঘটনায় তাবলীগের বিবদমান দুটি গ্রুপের মধ্যে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। উত্তেজনা নিরসনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। রাতেই গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের দক্ষিণ জোনের ডিসি,এসি-সহ পুলিশ কর্মকর্তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে ছুটে যান।

মাওলানা সা’দপন্থী হাজী মনির জানান, সোমবার বাদ এশা তারা ২০-২৫ জন মুসল্লি নিয়ে মসজিদে তা’লীমের আমল করছিলেন। তাবলীগের পুরনো সাথী মাসুদ পাটোয়ারি তা’লীম দিচ্ছিলেন। এসময় জোবায়েরপন্থী ইঞ্জিনিয়ার সামসুল হক, আবু হানিফ ও মজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ৫ শতাধিক লোক অতর্কিতে মসজিদ ঘেরাও দিয়ে ভেতরে ঢুকে হামলা চালায়। হামলাকারীরা তা’লীমরত মুসল্লিদের মারধর করে মসজিদ থেকে বের করে দেয়। হামলায় তা’লীমের আমীর মাসুদ পাটোয়ারি ও হাজী জহিরুল ইসলামসহ অন্তত ১০ জন আহত হন। গুরুতর আহত মাসুদ পাটোয়ারি ও হাজী জহিরকে রাতেই টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এব্যাপারে তাবলীগ জামাতের শীর্ষ মুরব্বী মাওলানা সা’দ কান্দলভীপন্থী ও ইজতেমা ময়দানের নজমের সাথী হাজী মনিরের সাথে মঙ্গলবার দুপুরে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এ ঘটনায় তারা আইনী ব্যবস্থা নিচ্ছেন এবং শীর্ষ মুরব্বীদের সাথে মাশুয়ারা করে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবেন।

জোবায়েরপন্থী হামলাকারী মজিবুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘সা’দপন্থীদের নিষেধ করা সত্বেও তারা মসজিদে তা’লীম করছিল। তাই তাদেরকে নিষেধ করতে গিয়েছিলাম। ’

এব্যাপারে জিএমপির টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। উভয়পক্ষের মধ্যে সমঝোতার চেষ্টা চলছে।



 

Show all comments
  • Abdur Rahman ২৮ জানুয়ারি, ২০২১, ৭:১৩ পিএম says : 0
    ইসলামে কোন জোরজবরদস্তি নেই। তোমার তালিম পছন্দ না হলে তালিমে বসিও না। তাই বলে অন্যকে বাধা দেয়া, তালিম করতে নিষেধ করা, মারপিট করা মোসলমানের নীতি হতে পারে না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হামলা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ