Inqilab Logo

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ইউজিসির সফ্ট লোনে জবি শিক্ষার্থীদের বিরূপ প্রতিক্রিয়া

জবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১, ১:৪৬ পিএম

অনলাইন ক্লাসে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহন নিশ্চিত করতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সুদমুক্ত ঋন নিয়ে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের তথ্যানুসারে চলতি মাসে জবির প্রায় ৫ শতাধিক শিক্ষার্থী ইউজিসির সুদমুক্ত ঋন পাচ্ছে এমন খবরে নেতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার প্রাক্কালে ইউজিসির এ ঋণ প্রকল্পকে তামাশা হিসেবে দেখছেন বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এছাড়া সফ্টলোন পেতে মোবাইল কেনার রশিদ আগে জমা দিতে হবে তারপর লোন দিবে এমন প্রক্রিয়া নিয়ে ধোঁয়াশার সৃষ্টি হয়। লোন পাওয়ার আগে মোবাইল কেনার জন্য টাকা কোথায় পাবে এ নিয়ে প্রশ্নও তোলেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা জানায়, করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় অনলাইনে ক্লাস শুরু হলে নানবিধ সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম সমস্যা ছিলো ডিভাইস সংকট। করোনাকালীন দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ায় প্রায় সবাই অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহনের জন্য যেকোন উপায়ে ডিভাইসের ব্যবস্থা করেছি। খুব শীঘ্রই ক্যাম্পাস খুলে দেয়ার প্রক্রিয়া চলমান। এই মুহূর্তে ইউজিসির ঋণ তেমন কোন কাজে আসবে না।
এদিকে, গত ২৪ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দপ্তর থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় আগামী ৩১ জানুয়ারির মধ্যে সফট লোনের অর্থ প্রদান করা হবে। বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয় ২৭ জানুয়ারির মধ্যে ডিভাইস কেনার ভাউচার বিভাগীয় চেয়ারম্যানের কাছে জমা দিতে হবে। এই বিজ্ঞপ্তিকে ঘিরে বিভিন্ন বিভাগ ও শিক্ষার্থীদের মাঝে এক ধরনের ধোঁয়াশার সৃষ্টি হয়। বিভাগ ও শিক্ষার্থীরা মনে করেন সফট লোনের টাকা পাওয়ার আগেই ডিভাইস কেনার ভাউচার বিভাগে জমা দিতে হবে। এ নিয়ে শিক্ষাথীদের মাঝে এক ধরনের হতাশা তৈরি হয়। তাই অনেক শিক্ষার্থী আবেদন করতে অনীহা প্রকাশ করেন বলে জানা যায়।

বিশ্ববিদ্যালরে অর্থ ও হিসাব দফতর থেকে জানা যায়, লোন প্রদানের জন্য চূড়ান্ত আবেদন চাওয়া হলে এখন পর্যন্ত ২৪ বিভাগ থেকে প্রায় ৫০০ জনের মত শিক্ষার্থী লোন নিতে আবেদন করেছে। গত বছরের ৪ নভেম্বর এক সভায় করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমের লক্ষ্যে মোবাইল কিনতে দেশের ৩৯টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ৪১ হাজার ৫০১ জন অসচ্ছল শিক্ষার্থীকে বিনা সুদে আট হাজার টাকা করে ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। তখন জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীদের পাঠানো আবেদনের প্রেক্ষিতে ইউজিসি ৩০০৬ শিক্ষার্থীকে প্রাথমিকভাবে লোন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর ঋণগ্রহী শিক্ষার্থীরা চারটি কিস্তিতে অথবা এককালীন আসল টাকা পরিশোধ করতে পারবেন। তবে ঋণের সম্পূর্ণ অর্থ ফেরত না দেয়া পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীর নামে কোন ট্রান্সস্ক্রিপ্ট ও সাময়িক বা মূল সনদ ইস্যু করা হবে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জবি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ