Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬, ১৬ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

কিরগিজ জালে ইরানের গোল উৎসব

প্রকাশের সময় : ৩০ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : শুরুটা স্বাগতিকদের কাছে হার দিয়ে হলেও এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাই পর্বের ‘সি’ গ্রæপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে কিরগিজস্তানের বিপক্ষে গোল উৎসবে মেতেছিলো ইরান। গতকাল সকালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে ইরান ৯-০ গোলে হারায় কিরগিজদের। ইরানী ফরোয়ার্ড ফাতেমেহ্ ঘাসেমি একাই করেন ৫ গোল।
এই টুর্নামেন্টের গত আসরে সেরার খেতাব জেতা ইরান এবার প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের কাছে ৩-০ গোলে হারলেও দ্বিতীয় ম্যাচে ঘুরে দাঁড়িয়েছে তারা। কাল ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে ইরানী মেয়েরা। তারা একের পর এক আক্রমণে দিশেহারা করে ফেলে কিরগিজস্তানের রক্ষণভাগকে। ফলে গোলের পর গোল তুলে নিতে বেগ পেতে হয়না ইরানকে। বল দখলের লড়াইয়ে শুরু থেকে ইরান এগিয়ে থাকলেও গোল পেতে তাদের ১৮ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হয়। এসময় ফরোয়ার্ড ফাতেমেহ্ ঘাসেমি গোল করে ইরানকে এগিয়ে নেন (১-০)। ধারাবাহিক আক্রমণের মুখে ম্যাচের ২৬ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান মিডফিল্ডার মারাল টোর্কাম্যান (২-০)। ৪২ মিনিটে ফাতেমেহ্ মাখদৌমি ইরানের পক্ষে তৃতীয় গোল করেন (৩-০)। প্রথামার্ধের অতিরিক্ত সময়ে বিজয়ীদের পক্ষে চতুর্থ গোল করেন মিডফিল্ডার রোঘাইয়ে জালাল নাসাব (৪-০)। চার গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে গেলেও দ্বিতীয়ার্ধে গোলক্ষুধা একটুও কমেনি ইরানের। বিরতির পর আরো পাঁচ গোল করে তারা। ৫৪ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন ফাতেমেহ্ ঘাসেমি (৫-০)। ৭১ মিনিটে কিরগিজস্তানের জালে বল ঠেলে দিয়ে হ্যাট্রিক পূর্ণ করেন এই ইরানী ফরোয়ার্ড (৬-০)। ৮০ মিনিটে আরো এক গোল করেছেন ঘাসেমি (৭-০)। ৮৫ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় ও দলের পক্ষে অষ্টম গোল করেন ফাতেমেহ্ মাখদৌমি (৮-০)। কিরগিজদের বিপক্ষে গোল উৎসবের শুরুটা করেছিলে ফাতেমেহ্ ঘাসেমি, শেষটাও করলেন তিনিই। ম্যাচের ৮৭ মিনিটে কিরগিজস্তানের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন এই ফরোয়ার্ড (৯-০)। ম্যাচের বাকি সময় আরো কোন গোল না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত বিশাল জয়েই মাঠ ছাড়ে ইরান।
একই ভেন্যুতে বিকালে অনুষ্ঠিত দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে চাইনিজ তাইপে ৫-০ গোলে হারায় সংযুক্ত আরব আমিরাতকে। ম্যাচের শুরু থেকে গোলের জন্য মরিয়া থাকলেও তা পেতে কিছুটা দেরী হয় তাইপের। একের পর এক সুযোগ সৃষ্টি করেও ১৮ মিনিটের আগে গোল পায়নি তারা। এই সময় মিডফিল্ডারটি সঙ্গে গোলে এগিয়ে যায় তাইপে (১-০)। এরপর নিয়মিত বিরতিতেই গোল আদায় করে নেয় বিজয়ী দল। ম্যাচের ৪৮ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান মিডফিল্ডার উ ইউ জু (২-০)। ৫৭ মিনিটে মিডফিল্ডার জেং ইয়া জিহে তাইপের পক্ষে তৃতীয় গোল করেন (৩-০)।
৭৭ মিনিটে ফরোয়ার্ড ইউ ইয়া জুয়ান গোল করে ব্যবধান আরো বড় করেন (৪-০)। ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে জুয়ান আরো একটি গোল করলে ৫-০ গোলের জয় নিশ্চিত হয় চাইনিজ তাইপের।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ