Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৭ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৩ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

পুঁজিবাজারে টানা সাত কার্যদিবস দরপতন

প্রকাশের সময় : ৩০ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : শেয়ারবাজারের অস্থিরতা যেন কাটছে না। টানা দরপতনে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। গত সপ্তাহের দরপতন ধারা আজও অব্যাহত রয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস গতকাল সোমবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মূল্যসূচক পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। কমেছে টাকার অংকে লেনদেনের পরিমাণও। এ নিয়ে টানা সাত দিন দরপতন হলো পুঁজিবাজারে। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের মিশ্র প্রবণতা থাকলেও কমেছে লেনদেনের পরিমাণ।
একদিকে টানা দরপতন, অন্যদিকে অনিয়ম-দুর্নীতি আর কারসাজি চক্রের অপতৎপরতা আস্থাহীনতায় ভুগছেন বিনিয়োগকারীরা। ফলে নতুন করে কোনো বিনিয়োগ আসছে না। এছাড়াও ঈদ সামনে রেখে অনেকে শেয়ার বিক্রি করে টাকা তুলে নিচ্ছেন। সব মিলিয়ে পুঁজিবাজারে স্থবিরতা বিরাজ করছে।
টানা দরপতন সম্পর্কে পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, অনেক বিনিয়োগকারী লভ্যাংশ তুলে নেওয়ায় বাজার কিছুটা পড়েছে। তবে আশা করছি বাজার আবার ঘুরে দাঁড়াবে। সাত দিন দরপতন হয়েছে। এর আগে বেশকিছু দিন বাজার ঊর্ধ্বমুখী ছিল। এটা স্বাভাবিক।
এদিকে সামিট পাওয়ারের সঙ্গে একই গ্রæপের তিন কোম্পানির একীভূতকরণ নিয়ে তৈরি জটিলতায় পুঁজিবাজারে অস্থিরতা বিরাজ করছে। কোম্পানিটির গত বুধবারের (২৪ আগস্ট) লেনদেনের সেটেলমেন্ট বন্ধ করেছে ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ। একই সঙ্গে সৃষ্ট জটিলতায় ডিএসই মার্কেট ডেভেলপমেন্ট/অপারেশন বিভাগের উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) নিজাম উদ্দিন আহমেদকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে ওএসডি করা হয়।
গতকালের বাজার পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, গত ১৭ আগস্ট থেকে ডিএসইর সূচক টানা পতন শুরু হয়। সূচকের সঙ্গে গত তিন দিন ধরে লেনদেনেও পতন অব্যাহত আছে। গতকাল সোমবার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে শূন্য দশমিক ৫১ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৫৩৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএস ৩০ সূচক ১ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ১০১ পয়েন্টে এবং ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৭৩৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪১০ কোটি টাকা। যা আগের দিনের চেয়ে ৫৫ কোটি টাকা কম। রোববার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৪৬৫ কোটি টাকা।
ডিএসইতে ৩২২টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে বেড়েছে ১৪৮টির, কমছে ১২৫টির এবং অপরিবর্তিত আছে ৪৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারদর। এছাড়া টাকার অঙ্কে এদিন ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলোÑমবিল যমুনা, ন্যাশনাল টিউবস, বিএসআরএম লিমিটেড, ফার কেমিক্যাল, শাহজিবাজার ইন্ডাস্ট্রিজ, আলহাজ টেক্সটাইল, বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেম, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ, এপেক্স ফুড এবং মিথুন নিটিং।
অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক একচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স দশমিক শূন্য ৫ পয়েন্ট বেড়ে ৮ হাজার ৪৭৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এছাড়া সিএসই ৫০ সূচক দশমিক ৫৫ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৩৫ পয়েন্টে, সিএসই ৩০ সূচক ৪৩ পয়েন্ট কমে ১২ হাজার ৬৪৬ পয়েন্টে, সিএসপিআই সূচক দশমিক ৭৪ পয়েন্ট বেড়ে ১৩ হাজার ৯২০ পয়েন্টে এবং সিএসআই শরিয়াহ সূচক ২ পয়েন্ট কমে ৯৮২ পয়েন্টে অবস্থান করছে।
সিএসইতে মোট ২৫৮টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে বেড়েছে ১২৫টির, কমেছে ১০০টির এবং অপরিবর্তিত আছে ৩৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর। সিএসইতে টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ১৯ কোটি ৭১ লাখ টাকা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন