Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০৯ আষাঢ় ১৪২৮, ১১ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

পাইলট থেকে ডেলিভারি বয়, রাতে মেকানিক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০১ এএম

করোনাভাইরাস মহামারিতে বিশ্বজুড়ে এখনও তান্ডবলীলা অব্যাহত রেখেছে। তবে এই ভাইরাসে শুধু জীবনই যে গেছে, তা নয়। চাকরি হারিয়ে বেকার হয়েছে বহু মানুষ। কেউ কেউ বেঁচে থাকার জন্য বিকল্প পথ বেছে নিলেও অনেককেই পথে বসতে হয়েছে। করোনায় যেসব খাত সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে, তা হচ্ছে বিমান খাত। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনার কারণে দেউলিয়া হয়ে গেছে বিভিন্ন বিমান সংস্থা। রাতারাতি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বেকায়দায় পড়েছে খাত সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। তেমনই একজন হচ্ছেন প্যাট্রিক পাওয়েলজাক। তিনি গোটুস্কাই নামের একটি বিমান সংস্থায় কাজ করতেন। কিন্তু করোনার কারণে বন্ধ হয়ে যায় বিমান সংস্থাটি। চাকরি হারান প্যাট্রিক। বদলে যায় তার জীবনযাত্রা। শেষপর্যন্ত অ্যামাজনে ডেলিভারি বয় হিসেবে চাকরি পান প্যাট্রিক। তবে সপ্তাহে সর্বোচ্চ ১৫ ঘণ্টা কাজ করতে পারবেন বলা হয় তাকে। এজন্য ঘণ্টা প্রতি ১৪ ইউরো পাবেন। তবে কর এবং জ্বালানি তেলের দাম দিয়ে লাভ থাকে মাত্র ৫ ইউরো। পরে তিনি এক কারখানায় একজন মেকানিক হিসেবে রাতের শিফটে কাজ শুরু করেন। দিনে অ্যামাজনের ডেলিভারি বয় আর রাতে মেকানিক। পরে এসব কাজ শেষ হয়ে যাওয়ার পর তার একজন বন্ধু নির্মাণ শ্রমিক হিসেবে খন্ড কাজ শুরু করার প্রস্তাব দেন। এখন দেয়াল নির্মাণ, রঙ করা, পানির কাজ, বিদ্যুৎ এবং এয়ার কন্ডিশনিংসহ সব ধরনের কাজ করেন প্যাট্রিক। তবে এগুলো ছাড়াও ডেলিভারি বয়ের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন প্যাট্রিক। কিন্তু বেকারত্বের এই জীবন তার সঞ্জীবনী সুধা শুষে নিচ্ছে বলে জানান তিনি। স্লোভেকিয়ার এই কোম্পানিতে ২০১৮ সালে ফার্স্ট অফিসার হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন প্যাটিক। পোল্যান্ডের নাগরিক প্যাট্রিক বার্সেলোনায় বাস করতেন। ওয়েবসাইট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডেলিভারি-বয়
আরও পড়ুন