Inqilab Logo

রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৫ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

আলোচনায় মেহজাবীনের ‘ভাইরাল গার্ল’

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১১:৩১ এএম
বর্তমান যুগে বেশরভাগ মানুষের হাতেই দেখা যায় হাতে স্মার্টফোন। যার কারণে চোখের সামনে ঘতে যাওয়া কোনো ঘটনার ছবি, ভিডিও ধারণ করে ছেড়ে দেয়া যায় সামাজিক মাধ্যমে। অনেক সময় ঘটনার আদ্যোপান্ত না জেনেই মনের মতো ক্যাপশন বসিয়ে দেয়া হয় ছবি বা ভিডিওর ওপর। এতে ভুক্তভুগীর অবস্থা কতটা নাজুক হতে পারে সেটা দেখিয়ে দেয়া হয়েছে ‘ভাইরাল গার্ল’ নাটকে।
 
গত ২৮ ডিসেম্বর ইউটিউবে প্রকাশ হওয়া নাটকটি রোববার (৮ ফেব্রুয়ারী) রাত নাগাদ ৪০ লাখ ভিউ হয়েছে। কাজল আরেফিন অমি’র পরিচালনায় নাটকটির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন মেহজাবীন চৌধুরী ও মনোজ প্রামাণিক।
 
‘সে নো টু অনলাইন হ্যারেসমেন্ট’ স্লোগান নিয়ে নির্মিত নাটকের গল্পে দেখা যায়, বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছেন মেহজাবীন। পার্লার থেকে সেজে যাওয়ার পথে শিকার হন দুর্ঘটনার। মিথ্যা অপবাদ দিয়ে তাকে মারধর করে কয়েকজন। মারধরের ভিডিওটি রীতিমতো ভাইরাল হয় নেটদুনিয়ায়। চাকরি হারান মেহজাবীন। নাটকের শেষে জানা যায়, ফেক আইডির মাধ্যমে অনলাইনে প্রতারণা করে একটি চক্র। পুলিশের হাতে ধরা পড়ে ওই চক্রের সদস্যরা। উদঘাটন হয় সত্য ঘটনা। কিন্তু ততক্ষণে নিভে যায় বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাওয়া নাজিয়ার জীবন প্রদীপ।
 
নির্মাতা কাজল আরেফিন অমি বলেন, ‘গল্পটি বাস্তবধর্মী। সমসাময়িক এমন গল্পের নাটক প্রচারের পর লুফে নিয়েছে দর্শক। নাটকের কমেন্টস বক্সের মন্তব্যই তার প্রমাণ।’ অমি বলেন, ‘একজন স্বাধীনচেতা মেয়ের গল্প ভাইরাল গার্ল। ভাইরাল হওয়ার পর তার জীবনে কেমন কালো অধ্যায় নেমে আসে সেটাই দেখানো হয়েছে নাটকে। ভাইরাল হয়ে পড়ার পরের ঘটনা নিয়েই নাটকের গল্প। নাটকটিতে দর্শকদের রেসপন্স আমাদের মুগ্ধ করেছে।’ 
 
মেহজাবীনের অভিনয় ক্যারিয়ার প্রায় একযুগ। এই সময়ে অনেক নাটকেই অভিনয় করেছেন। তবে ২০১৭ সালে ‘বড় ছেলে’ নাটকের মাধ্যমে নতুন করে আলোচনায় আসেন তিনি। বিদায়ী বছর ‘ইরিনা’ নামের আরেকটি নাটক তাকে জাত অভিনেত্রী হিসেবে পরিচিতি দিয়েছে। নতুন বছর ‘ভাইরাল গার্ল’ দিয়ে শুরু হলো তার সফলতার নতুন যাত্রা। এই সফলতার কারণেই তার হাতে এখন সবচেয়ে বেশি নাটক।
 
নাটকটি প্রসঙ্গে মেহজাবীন বলেন, সত্য-মিথ্যা যাচাই না করার ফলে সোশ্যাল মিডিয়ায় একজন মানুষকে কতটা হ্যারেজম্যান্ট করা যায় তার উদাহরণ ‘ভাইরাল গার্ল’। এই নাটকের গল্প পড়েই ভালো লেগে ছিল। নির্মাণশৈলীর কারণে সেটা আরো সুন্দরভাবে ফুটে উঠেছে। আমার মনে হয় এই নাটকটি দেখার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনো কিছু শেয়ার করার আগে মানুষ কয়েক বার চিন্তা করবে। এটা হলো এই নাটকের স্বার্থকতা।’
 
‘ভাইরাল গার্ল’ নাটকটি প্রযোজনা করেছে টার্ন কমিউনিকেশন। পরিচালনার পাশাপাশি এটির রচনা ও চিত্রনাট্য করেছেন কাজল আরেফিন অমি। মনোজ-মেহজাবীন ছাড়া এতে আরো অভিনয় করেছেন শাহেদ আলী সুজন, মিলি বাশার, রাজু সরকার, রকি খান, রত্না খান প্রমুখ। নাটকটি লাইভ টেকনোলজির ইউটিউব চ্যানেলের পাশাপাশি সিনেমাটিক অ্যাপেও ফ্রি দেখার সুযোগ রয়েছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভাইরাল গার্ল
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ