Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭, ২৮ শাবান ১৪৪২ হিজরী

করোনা সংকটের মাঝেও এবারও সেরা করদাতা সাভারের তরুণ ব্যবসায়ী

সাভার থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৩:১৩ পিএম

গেল অর্থবছরের মাঝামাঝিতে শুরু হয় করোনার প্রকোপ। এর প্রভাব সামলিয়ে ঢাকা জেলার সেরা করদাতার সম্মাননা পেয়েছেন সাভারের আশুলিয়ার তরুণ ব্যবসায়ী তানভীর আহমেদ রোমান ভূইয়া। বৃহস্পতিবার রাজধানীর পুরানা পল্টনে ফারস হোটেল এন্ড রিসোর্টে তার হাতে সম্মাননা তুলে দেয় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড।

তরুণ এই ব্যবসায়ীর রয়েছে টেলিকম, বহুজাতিক কোম্পানীর ডিলারশীপ, আবাসন, স্যাটেলাইট ক্যাবল টিভি নেটওয়ার্কসহ নানান ব্যবসা। করোনার শুরুতেই সংকটে পড়ে এসব ব্যবসার সিংহভাগ। বিশেষ করে লকডাউন চলাকালীন বড় মাত্রার ধাক্কা খায় তার আবাসন ব্যবসা। জমিজমার বেচাকেনা যেমন কমে গিয়ে শূন্যের কোটায় পৌছায়-তেমনি ভাড়াটিয়ারাও ছেড়ে যেতে থাকেন বাড়ি-বাণিজ্যিক ভবন। আয় কমে গেলেও ভাড়াটিয়াদের দেখভালের দায়িত্বও নিতে হয়েছে তাকে। এর পাশাপাশি আরও কিছু খাতে কমে যায় আয়। কিন্তু এসব খাত থেকে আয় কমে গেলেও টেলিকম ব্যবসা থেকে আয় বেড়ে যায় একই সময়ে।

তানভীর আহমেদ রোমান ভ‚ইয়ার বন্ধন ডিষ্টিবিউশন অ্যান্ড সাপ্লাইয়ার্স নামের প্রতিষ্ঠানটি মূলত গ্রামীণফোনের সাভার-আশুলিয়া অঞ্চলের পরিবেশক। আর গ্লোরী ডিষ্টিবিউশন নামের প্রতিষ্ঠানটি হল বিকাশের পরিবেশক। লকডাউনের সময় ঘর থেকে মানুষ কম বের হন। এর পরিবর্তে যোগাযোগের জন্য ইন্টারনেট ও মুঠোফোন এবং লেনদেনের জন্য বিকাশের মত মোবাইল ব্যাংকিং প্লাটফর্ম ব্যবহার করতে থাকেন। এতেই যে মুনাফা বেড়ে যায় তাতেই অন্যান্য ব্যবসার ক্ষতি পুষিয়ে উঠেন তিনি।

ব্যবসায়ী তানভীর আহমেদ রোমান বলেন, আমার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে পাঁচ শতাধিক কর্মী রয়েছেন। তাদের জন্যই মূলত এ বছরের সম্মাননা অর্জন। তারা ইচ্ছে করলেই লকডাউনে কাজ করা ছেড়ে দিতে পারতেন। কিন্তু তারা এটি করেনি। ঢাকা জেলায় আমি গত ৫বছর ধরেই সেরা করদাতা হয়েছি। ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে আমার কর পরিশোধের পরিমাণও অন্য বছরের তুলনায় বেশী ছিল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সাভার


আরও
আরও পড়ুন