Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০১ ব্শৈাখ ১৪২৮, ০১ রমজান ১৪৪২ হিজরী

নেপাল-শ্রীলঙ্কাতেও কি ‘বিজেপি সরকার’ গড়তে চান অমিত শাহ?

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০১ এএম

শুধু ভারতের সব প্রান্তেই নয়, বিজেপি নেতা অমিত শাহ প্রতিবেশী দেশ ‘শ্রীলঙ্কা আর নেপালেও’ তার দলের নেতৃত্বে সরকার গড়তে চান - এ মন্তব্য করে চমকে দিয়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের একাধিক গণমাধ্যম ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে এ খবর প্রকাশ করেছে, বলা হয়েছে রোববার দলীয় কর্মীদের সঙ্গে এক সভাতেই তিনি অমিত শাহ-র এ ‘পরিকল্পনা’র কথা ফাঁস করেন।
প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, ২০১৮র ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপির তৎকালীন সভাপতি অমিত শাহ-র সঙ্গে তার কী কথোপকথন হয়েছিল, সেটা বলতে গিয়েই তিনি এ প্রসঙ্গ টেনে আনেন।

বিপ্লব কুমার দেব বলেন, ‘রাজ্য অতিথিশালায় বসে আমরা অমিতজী-র সঙ্গে সেদিন নানা বিষয়ে কথাবার্তা বলছিলাম। উত্তর-পূর্ব ভারতে বিজেপির ভারপ্রাপ্ত নেতা অজয় জামওয়ালও সেখানে উপস্থিত ছিলেন’।
কথায় কথায় অজয় জামওয়াল বলেন, ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে বহু রাজ্যেই এখন বিজেপির সরকার গঠিত হয়েছে। অমিতজী তখন মন্তব্য করেন, হ্যাঁ, এবার শ্রীলঙ্কা বা নেপালেও আমাদের পার্টিকে ছড়িয়ে দিতে হবে। সেখানেও আমাদের দলের নেতৃত্বে সরকার গড়তে হবে। তবে অমিত শাহ এ মন্তব্য করে থাকলেও সেটা একান্তই রসিকতার ছলে বলা কি না, মি. দেব তা স্পষ্ট করে কিছু বলেননি। দিল্লিতে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করা হয়নি।
ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর কার্যালয় থেকেও প্রকাশিত সংবাদের কোনও প্রতিবাদ করা হয়নি, যা থেকে ধরে নেয়া হচ্ছে বিপ্লব কুমার দেব মেনে নিচ্ছেন দলীয় কর্মীদের সামনে তিনি সত্যিই রোববার এ কথা বলেছিলেন। তবে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর গত তিন বছরে মি. দেবের নানা মন্তব্য দলকে বারে বারেই অস্বস্তিতে ফেলেছে।

‘বুঝেশুনে কথা বলার জন্য’ তাঁকে একাধিকবার দলীয় নেতৃত্ব সতর্ক করে দিয়েছেন বলেও বিজেপি সূত্রের খবর। পাশাপাশি বিজেপির শীর্ষস্থানীয় নেতা ও দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ-রও যে ‘ডিপ্লোম্যাটিক্যালি ইনকারেক্ট’ বা ক‚টনৈতিকভাবে অস্বস্তিকর কথাবার্তা বলার অভ্যাস আছে - ভারতের রাজনৈতিক মহলেও তা সুবিদিত।

এর আগে তিনি একাধিকবার ভারতে যে কথিত বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীরা রয়েছেন, তাদের ‘ঘুসপেটিয়া’, ‘উইপোকা’ ইত্যাদি বলে আক্রমণ করেছেন। আসামের এনআরসি বা জাতীয় নাগরিকপঞ্জী নিয়েও তিনি বাংলাদেশকে জড়িয়ে এমন নানা মন্তব্য করেছেন, যা ঢাকা ও দিল্লির মধ্যেকার সম্পর্কে অস্বস্তি ডেকে এনেছে। তবে বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ শ্রীলঙ্কা আর হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ নেপাল এতদিন মোটামুটিভাবে অমিত শাহ-র নিশানার বাইরেই ছিল। কিন্তু বছরতিনেক আগে তিনি যদি সত্যিই ওই দুটো দেশেও বিজেপির নেতৃত্বে সরকার গড়ার কথা দলীয় সহকর্মীদের বলে থাকেন - তা থেকে অনুমান করা যায় ভারতের বাইরেও বিজেপির আদর্শিক স¤প্রসারণ দলীয় নেতৃত্বের একটা গোপন লক্ষ্য। বিজেপির ওয়েবসাইটেও দলটিকে ‘বিশ্বের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল’ হিসেবেই পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়েছে। সূত্র : বিবিসি বাংলা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ