Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮, ০৪ রমজান ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

অর্থ দিতে বলায় অস্ট্রেলিয়ায় সংবাদ দেখা ও শেয়ার বন্ধ করে দিল ফেসবুক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১:০৯ পিএম

সম্প্রতি ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে অর্থ পরিশোধ করতে বলায় তারা সামাজিক যোগাযোগের এই মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ার ব্যবহারকারীদের জন্য কোনো সংবাদ দেখা বা তা শেয়ার করার সুযোগ আটকে দিয়েছে। ফলে অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া নিয়ে উদ্বেগ দেখা গেছে। আজ বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানা গেছে। খবর বিবিসির।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ায় প্রস্তাবিত এক আইনে কোনো সংবাদ প্রকাশ করার জন্য ফেসবুককে অর্থ পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। প্রস্তাবিত এই আইনের কারণেই ফেসবুক এ পদক্ষেপ নিয়েছে। অস্ট্রেলিয়া সরকার ফেসবুকের এই পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করেছে। দেশটির কর্তৃপক্ষ জানায়, ‘এই ডিজিটাল সামাজিক মাধ্যমগুলোর বিপুল বাজার নিউজ কনটেন্টে।

সপ্তাহের অন্যান্য আর কয়টা দিনের মতোই আজ বৃহস্পতিবারও সাতসকালে ঘুম থেকে ওঠেন অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকেরা। কিন্তু এদিনের সকালটা ছিল তাঁদের জন্য খানিকটা ব্যতিক্রমই। ফেসবুকে ঢুকে দেশীয় ও বিদেশি সংবাদ সাইটগুলোর ফেসবুক পেজ খুঁজতে গিয়ে দেখেন, সেগুলো বন্ধ। অর্থাৎ, তাঁরা কোনো দেশি-বিদেশি খবর ফেসবুকে দেখতে পাচ্ছেন না।
অস্ট্রেলিয়ার প্রকাশকেরাও তাদের ফেসবুক পেজে কোনো সংবাদ আধেয় প্রকাশ বা শেয়ার করতে পারছেন না। প্রসঙ্গত, ফেসবুকে দেশটির জাতীয় সম্প্রচারমাধ্যম এবিসি এবং সিডনি মর্নিং হেরাল্ড ও দ্য অস্ট্রেলিয়ানের মতো সংবাদমাধ্যমগুলোর কোটি কোটি অনুসারী রয়েছেন।

পাশাপাশি গতকাল থেকেই বন্ধ হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার স্বাস্থ্য, জরুরি সেবা ও অন্যান্য খাতের বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের ফেসবুক পেজ। তবে পরে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি জানায়, এ ক্ষেত্রে তাদের কিছুটা ত্রুটি আছে। ওই সব পেজ তারা বন্ধ করতে চায়নি। ভুল করে হয়ে গেছে।

এছাড়া অস্ট্রেলিয়ার বাইরে থেকেও কেউ ওই দেশের কোনো সংবাদ প্রতিষ্ঠানের পেজ দেখতে পাবেন না। ফেসবুকের এই পদক্ষেপের প্রতিক্রিয়ায় অস্ট্রেলীয় সরকার বলেছে, এ নিষেধাজ্ঞা ফেসবুকের গ্রহণযোগ্যতাকে হুমকিতে ফেলেছে। নিজের সুনাম ও অবস্থানের ক্ষেত্রে ফেসবুকের ওই পদক্ষেপ কী প্রভাব ফেলতে পারে, তা নিয়ে প্রতিষ্ঠানটিকে খুব মনোযোগের সঙ্গে ভাবা উচিত।

গুগল ও ফেসবুকের মতো বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর যুক্তি, ইন্টারনেট দুনিয়া কীভাবে কাজ করে, সেই বিষয়টি অস্ট্রেলিয়ার ওই আইনে প্রতিফলিত হয়নি এবং সামাজিক যোগাযোগের এসব প্ল্যাটফর্মকে অন্যায্যভাবে ‘সাজা’ দেওয়া হয়েছে। এর আগে অস্ট্রেলিয়ার সরকার জানায়, তারা আইনটি পাস করার কার্যক্রম এগিয়ে নিচ্ছে। গত বুধবার এটি পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে পাস হয়েছে।

এদিকে ফেসবুকের ওই পদক্ষেপের কয়েক ঘণ্টা আগে গুগল তার প্ল্যাটফর্মে বিভিন্ন সংবাদ ওয়েবসাইট থেকে পাওয়া আধেয় প্রকাশ করার জন্য মিডিয়া মোগল রুপার্ট মারডকের নিউজ করপোরেশনকে অর্থ দিতে রাজি হয়।

এদিকে অস্ট্রেলিয়ার প্রকাশকেরাও তাদের ফেসবুক পেজে কোনো সংবাদ আধেয় প্রকাশ বা শেয়ার করতে পারছেন না। প্রসঙ্গত, ফেসবুকে দেশটির জাতীয় সম্প্রচারমাধ্যম এবিসি এবং সিডনি মর্নিং হেরাল্ড ও দ্য অস্ট্রেলিয়ানের মতো সংবাদমাধ্যমগুলোর কোটি কোটি অনুসারী রয়েছেন। সূত্র : বিবিসি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফেসবুক

২৪ মার্চ, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন