Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭, ২৯ শাবান ১৪৪২ হিজরী

কলকাতাতেই সাকিব, রাজস্থানে মুস্তাফিজ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০৬ এএম

২০২১ সালের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) মাঠে গড়াবে এপ্রিলে। তবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো দল গোছানোর কাজটা সেরে নিয়েছে গতকালই। চেন্নাইয়ের একটি পাঁচতারকা হোটেলে হয়ে গেল চতুর্দশ আসরের নিলাম। তাতে দল পেয়েছেন বাংরাদেশের সাকিব আল হাসান ও মুমস্তাফিজুর রহমান।
১ হাজার ১১৪ জন ক্রিকেটার থেকে বেছে নেওয়া ২৯২ জন ক্রিকেটার উঠেছিলেন এবারের নিলামের টেবিলে। যাদের মধ্যে ১২৮ জনই বিদেশি। আর তাঁদের মধ্যে দলগুলো কিনছে মাত্র ২২ জন ক্রিকেটারকে। আগেরদিন পর্যন্ত জানা গিয়েছিল, এ তালিকায় আছেন চার বাংলাদেশি ক্রিকেটার। গতকাল সাকিব, মুস্তাফিজ, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ আর মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের নামের সঙ্গে শেষ মুহ‚র্তে যুক্ত হয়েছেন মুশফিকুর রহিমও। ২০২০ সংস্করণে উপেক্ষিত থাকা বাংলাদেশের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান রিপোর্টটি লেখা পর্যন্ত এবারও ছিলেন অবিক্রিত।
দেশসেরা অলরাউন্ডার সাকিবকে ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে দলে নিয়েছে তার পুরনো ফ্র্যাঞ্চাইজি কলকাতা নাইট রাইডার্সই। সাকিবকে দলে নিতে কলকাতার সঙ্গে চেষ্টা চালায় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবও। এবারের আইপিএলে বাংলাদেশের এই বাঁহাতি অলরাউন্ডারের ভিত্তিমূল্য ছিল সর্বোচ্চ ২ কোটি রুপি। নিলামের দ্বিতীয় সেটেই তোলা হয় তার নাম। ভিত্তিম‚ল্যে শুরুতে তাকে পেতে বিড করে বলিউড বাদশাহ খ্যাত শাহরুখ খানের মালিকানাধীন কলকাতা। খানিক পর ২ কোটি ২০ লাখ রুপিতে ডাক তোলে পাঞ্জাব।
কলকাতা সাকিবকে দলে নিতে ছিল মরিয়া। তারাও দাম বাড়ায়। ২০ লাখ রুপি বাড়িয়ে বাড়িয়ে চলতে থাকে নিলাম। তবে ৩ কোটি রুপি পর্যন্ত দাম তুলে হাল ছেড়ে দেয় বলিউড অভিনেত্রী প্রীতি জিনতার দল পাঞ্জাব। ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে তাই ফের সাকিবের ঠিকানা কলকাতা।
কলকাতার ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে সর্বোচ্চ ছয় আসর খেলেছেন সাকিব। এরপর তার ঠিকানা হয় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। সেখানে তিনি ছিলেন দুই মৌসুম। তবে জুয়াড়ির সঙ্গে আলাপের তথ্য গোপন করে নিষিদ্ধ থাকায় এই ক্রিকেটার খেলতে পারেননি সবশেষ আসরে। ফলে তাকে ছেড়ে দেয় সানরাইজার্স।
২০০৯ সালে প্রথম আইপিএলের নিলামে নিজের নাম উঠিয়েছিলেন সাকিব। সেবার কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি আগ্রহী হয়নি তার ব্যাপারে। ২০১১ আসরে প্রথম তাকে ৪ লাখ ২৫ হাজার ডলারে দলে নেয় কলকাতা। কলকাতার হয়ে সাত মৌসুমে ছয় আসরে খেলেন তিনি (একবার পারেননি চোটের কারণে)। এরপর ২০১৮ সালে ২ কোটি রুপিতে তাকে নিয়েছিল সানরাইজার্স।
আইপিএলে সবমিলিয়ে ৬৩ ম্যাচে ২১.৩১ গড়ে সাকিবের সংগ্রহ ৭৪৬ রান এবং ২৮.০০ গড়ে তার শিকার ৫৯ উইকেট। নিলামে বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে দল পাওয়ার দৌড়ে বরাবরই এগিয়ে থাকেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই তারকা।
এদিকে, দুই আসর পর এবারের আইপিএলে দল পেয়েছেন বাংলাদেশের বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। ভিত্তিম‚ল্য এক কোটি রুপিতে তাকে দলে নিয়েছে রাজস্থান রয়্যালস। নিলামের চতুর্থ সেটে নাম ওঠে বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজের। তাকে নিতে ভিত্তিমূল্যে বিড করে রাজস্থান। এরপর আর কোনো দল আগ্রহী না থাকায় তারা সহজেই পেয়ে যায় বাংলাদেশের ‘কাটার মাস্টারকে’।
এর আগে আইপিএলে আরও দুই ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে খেলেছেন মুস্তাফিজ। ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতকে কাঁপিয়ে অভিষেক হয় তার। পরের বছর তাকে দলে নেয় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। আইপিএলে নিজের অভিষেক আসরে দলের চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় বড় ভূমিকা ছিল মুস্তাফিজের। আসরের সেরা উদীয়মান ক্রিকেটারও নির্বাচিত হন তিনি। সানরাইজার্সে তিনি খেলেন পরের মৌসুমেও। কিন্তু পারফরম্যান্সে ছিল বিবর্ণ। পরে তার ঠিকানা হয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। কিন্তু তাদের হয়েও আলো কাড়তে ব্যর্থ হন দ্য ফিজ।
আইপিএলে সবশেষ দুই মৌসুমে খেলা হয়নি মুস্তাফিজের। গত আসরে একটি ফ্র্যাঞ্চাইজি আগ্রহ প্রকাশ করলেও সেসময় বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কা সফরের সূচি থাকায় যাওয়া হয়নি তার। তৃতীয় ফ্র্যাঞ্চাইজি হিসেবে রাজস্থানে নাম লিখিয়েছেন মুস্তাফিজ। আইপিএলে ২৪ ম্যাচ খেলে মুস্তাফিজের উইকেট ঠিক ২৪টি। তার ইকোনমি রেট ৭.৫১।



 

Show all comments
  • আবদুল মান্নান ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ২:৪৫ এএম says : 0
    দুই জনের জন্য শুভ কামনা রইলো
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাজস্থানে-মুস্তাফিজ
আরও পড়ুন