Inqilab Logo

রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

একুশের চেতনা গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে উৎসাহ যোগায়

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

৫২’র ভাষা আন্দোলনের চেতনা গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে উৎসাহ-সাহস যোগায় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, রক্তস্নাত অমর একুশে ফেব্রুয়ারির দিনটি আমাদেরকে আজও উদ্বুদ্ধ করে, যখন দেখি আজও রাষ্ট্র ক্ষমতায় এক দলীয় কর্তৃত্ববাদী শাসন, মাফিয়াতন্ত্রের রাষ্ট্রযন্ত্র তৈরি করা হয়েছে। বায়ান্নর চেতনা আমাদেরকে শাণিত করেছে, ধারালো করেছে বলেই আজও আমরা দৈত্যের ন্যায় এই কর্তৃত্ববাদী শাসনের বিরুদ্ধে লড়াই করে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের সংগ্রাম করছি। গতকাল রোববার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এসব কথা বলেন। ১৯৫২ সালে ছাত্র-জনতা আত্মদান করেছিল মাতৃভাষার জন্য। সেটা ছিল অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন। আজও আমরা যুথবদ্ধভাবে সংগ্রম করছি, আমরা মামলা-হামলা, গ্রেপ্তার, গুম এবং খুনকে বরণ করে নিয়েও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। এই চেতনার উৎস হচ্ছে ভাষা আন্দোলন, ভাষার অধিকার আদায়ে ছাত্রদের আত্মদান।

তিনি বলেন, বাঙালির প্রতিটি আন্দোলনই ছিল অধিকার হারানোর বেদনা, আর সেই বেদনা থেকে অধিকার আদায়ের রক্তক্ষয়ী সংগ্রাম।
বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমানউল্লাহ আমান বলেন, যাদের রক্তের বিনিময়ে আমরা ভাষার অধিকার পেয়েছি, গণতন্ত্র পেয়েছি, তাদের শ্রদ্ধা জানাই। বাষট্টির আন্দোলনে আমরা শিক্ষার অধিকার পেয়েছি, ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে আমরা গণতন্ত্র, একাত্তরে অনেক শহীদের রক্তের বিনিময়ে স্বাধীনতা পেয়েছিলাম, নব্বইয়ের স্বৈচারবিরোধী আন্দোলনে শহীদ মিলনদের রক্তের বিনিময়ে অমার পেয়েছিলাম গণতন্ত্র। কিন্তু আজকে দেশে গণতন্ত্র অনুপস্থিত। আজকে একদলীয় শাসন চলছে, ভোট ডাকাতি করে এই সরকার অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছে। বর্তমান সরকার অবৈধ সরকার, মাফিয়া সরকার। অবিলম্বে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য, মানুষের ভোটাধিকারের জন্য এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। আমরা জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করব।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদনের আগে আজিমপুর কবরস্থানে ভাষা শহীদদের কবরে শ্রদ্ধা জানান বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। সেখান থেকে প্রভাতফেরি করে তারা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এসময় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকন, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, কেন্দ্রীয় নেতা শামা ওবায়েদ, মীর সরফত আলী সপু, আমিনুল হক, মীর নেওয়াজ আালী নেয়াজ, শামীমুর রহমান শামীম, নাজিম উদ্দিন আলম, ইশরাক হোসেন, যুবদলের সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের ফজলুর রহমান খোকন, ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গণতন্ত্র-পুনরুদ্ধার
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ