Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১, ২৭ চৈত্র ১৪২৭, ২৬ শাবান ১৪৪২ হিজরী

আমি যদি কেনো মেয়ের সাথে দেখা না করে ফোনে কথা বলি এবং আমি তার সাথে ভালো কথা বলি। তাকে যদি বলি আমি তাকে বিয়ে করতে চাই, তবে আমার ২বছর বা ১বছর সময় লাগবে। এমতাবস্থায় তার সাথে দেখা না করে ফোনে কথা বলা যাবে কি?

ফজলে রাব্বী
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৭:৫৫ পিএম

উত্তর : না যাবে না। তাই আপনি উনাকে এখনই নরমালভাবে বিয়ে করে নেন। উভয়পক্ষের মুরব্বী মিলে সামাজিকভাবে আপনি তার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে যান। এরপর যদি আপনাদের দেখা সাক্ষাৎ বা তুলে নেওয়ার জন্য এক দু’বছর সময় লাগে সেটা অন্য ব্যাপার। সেটা আপনার সংগতি অনুযায়ী করতে পারেন। কিন্তু বিবাহ হবে এই কথার ওপর তার সাথে কোনো কথাই বলা যাবে না। সেটা ভালো কথাবার্তা, খোঁজ খবর নেওয়া, ফোন করা কোনোকিছুই আপনার জন্য জায়েজ হবে না। কারণ, বিয়ে করার ইচ্ছে করলেই বিয়ে হয় না। বিয়ে না করা পর্যন্ত তিনি বেগানা নারী, বেগানা নারীর সাথে অতি গুরুত্বপূর্ণ কথা ছাড়া, বাঁচা-মরা, জরুরী তথ্য আদান প্রদান, এগুলো তো পরপুরুষ বা পরনারীর সাথে করা জায়েজ আছে, কিন্তু তাই বলে তার সাথে আপনি কোনো সৌখিন আলাপ, খোঁজ খবর নেওয়া, কথা বলতে থাকা, ভালো কথাই হোক, তা আপনি করতে পারবেন না। তাকে কল করা, কথা বলা, তার কথা চিন্তা করা, অপেক্ষা করা, সে আপনার জন্য অপেক্ষা করা এসবগুলো হারাম।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
[email protected]

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
[email protected]



 

Show all comments
  • Md. Shamsul Alam ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৭:২৭ এএম says : 0
    ব্যস, হয়ে গেল, ভালোকথার আড়ালে একটু প্রেম করার সাধ থাকলেও আর প্রেম করা লো না।
    Total Reply(0) Reply
  • Md. Shamsul Alam ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৭:২৮ এএম says : 0
    ব্যস, হয়ে গেল, ভালোকথার আড়ালে একটু প্রেম করার সাধ থাকলেও আর প্রেম করা হলো না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন

বাসার মধ্যে যদি গাইরে মাহরাম থাকে যেখানে ফিতনা সৃষ্টি হওয়ার কোন সম্ভবনাই নাই, সেক্ষেত্রে আমার স্ত্রী কি মুখ খোলা রেখে তাদের সামনে আসতে পারবে? আর বাসায় যদি কোন মেহমান আসে যাদের কেউ কেউ আমার জন্য গাইরে মাহরাম, আবার কেউ কেউ আমার স্ত্রীর জন্য গাইরে মাহরাম, সেক্ষেত্রে কীভাবে আমরা তাদের মেহমানদারী করবো? আমার স্ত্রী পরিপূর্ণ পর্দা করে (মুখ খোলা রেখে) তাদের সামনে আসতে পারবে কি? আমরা স্বামী স্ত্রী একে অপরের পরিপূরক মনে করি, দুইজনের মন একটাই মনে করে (সব কথাই শেয়ার করি)। এমন কোন কথা যেটা অন্য ব্যক্তির সাথে শেয়ার করলে গীবত হত, তেমন কোন কথা স্ত্রীর সাথে শেয়ার করলে কি গীবত হবে?

উত্তর : শরীয়তে যাদের সামনে যাওয়া যায় তাদের সামনে চেহারা, হাত পায়ের কব্জি ইত্যাদি খোলা থাকলে কোনো সমস্যা নেই। যাদের সামনে যাওয়া যায় না, অথচ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ