Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ০২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৮ মুহাররম ১৪৪৪

৪২ লাখ টাকা নিয়ে উধাও কম্পিউটার অপারেটর

তিন কর্মকর্তার স্বাক্ষর জাল

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) সংবাদদাতা- | প্রকাশের সময় : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০৭ এএম

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার হিসাব রক্ষন অফিসের কম্পিউটার অপারেটর সাকিবুল হাসান ঐ অফিসের তিন কর্মকর্তার স্বাক্ষর জাল করে পাঁচটি ভুয়া বিল ভাউচারের বিপরীতে প্রায় ৪২ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে গা ঢাকা দেয়। এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানায় ২টি জিডি হয়। ১টি জিডি হয় গত ১৭ ফেব্রুয়ারি নং-৬৫১ এবং অপর জিডিটি হয় ২৩ ফেব্রুয়ারি নং-৮৯৪। গতকাল সকালে ঘটনা জানাজানি হলে সংবাদ কর্মীরা ভীড় করে সরিষাবাড়ী উপজেলা হিসাবরক্ষণ অফিসে। সরিষাবাড়ী উপজেলা হিসাব রক্ষক কর্মকর্তা স্নিগ্ধা রায়হান জানান, আমি গত ২০ ডিসেম্বর সরিষাবাড়ীতে যোগদান করি। যোগদানের পর অফিসের পুরান ফাইলপত্র গুলো চেক করতে করতে ১০ লক্ষাধিক টাকার একটি ভুয়া বিল ভাউচার আমার নজরে পড়ে। পরে প্রমাণ করতে পারলাম এ বিল ভাউচারটি ভুয়া। এরপর চেক করতে গিয়ে আরো ৪টি ভুয়া বিল ভাউচার নজরে আসে। ৫টি ভুয়া বিল ভাউচারের মোট টাকার পরিমান প্রায় ৪২ লাখ।

এক প্রশ্নের জবাবে উপজেলা হিসাব রক্ষক কর্মকর্তা জানান, সাকিবুল হাসান গত ৩ বছর যাবৎ এই অফিসে নন অফিসিয়ালী ভাবে এমএল এস (কম্পিউটার অপারেটর) হিসেবে কাজ করে আসছে।

বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে অফিসের অর্থ সংক্রান্ত অনেক বিল ভাউচার সে তার হাত দিয়েই করে যাচ্ছিল। এক পর্যায়ে অফিসের অডিটর, সুপার ও হিসাব রক্ষক কর্মকর্তার স্বাক্ষর জাল করে ৫টি বিল ভাউচার তৈরী করে ব্যাংক থেকে টাকা গুলো উত্তোলন করে নেয়।

গত ১৬ই ফেব্রুয়ারী একটি বিল নজরে এলে বাকী গুলো ধরা পড়ে। সাকিবুল হাসান গত কয়েকদিন ধরে গা ঢাকা দিয়েছে। সরিষাবাড়ী উপজেলার চর জামিরা গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে এই সাকিবুল। তার বাবা সরিষাবাড়ী হিসাব রক্ষন অফিসের এমএল এস পদে চাকুরী করার সুবাদে কম্পিউটারে কাজ জানা থাকায় ৩ বছর আগে সে এই অফিসেই কাজ করতো। তার বাবা এখন মাদারগঞ্জ উপজেলার হিসাব রক্ষন অফিসে এমএলএসে কর্মরত। ময়মনসিংহ বিভাগীয় হিসাব মহা নিয়ন্ত্রক শাহজাহান সরকারের সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি জানান, এ ব্যাপারে থানায় সাধারন ডাইরী হয়েছে এবং বিভাগীয় তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তবে কারো কারো ধারনা ৪২ লক্ষ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় অফিসের সাবেক হিসাব রক্ষক কর্মকর্তা সহ অপর দুই কর্মকর্তা সুপার ও অডিটরের সংশ্লিষ্টতা থাকতে পারে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উধাও-কম্পিউটার-অপারেটর
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ