Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৫ বৈশাখ ১৪২৮, ০৫ রমজান ১৪৪২ হিজরী

রাজকীয় বাহিনীসহ ৭৬ সউদী নাগরিকের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের ‘খাশোগি নিষেধাজ্ঞা’

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৩:৫০ পিএম

সউদী আরবের ৭৬ নাগরিকের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন ঘোষিত এক নতুন নিষেধাজ্ঞা নীতির আওতায় পড়েছেন তারা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাবেক একজন কর্মকর্তা ও রাজকীয় একটি বাহিনীর ওপর আর্থিক নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি সউদী আরবের ওই ৭৬ জন নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়লেন।
উল্লেখ্য, বিদেশি সরকারের হয়ে ভিন্নমতালম্বী, অ্যাকটিভিস্ট ও সাংবাদিকদের ওপর হুমকি কিংবা আক্রমণ চালানোর দায়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ‘খাশোগি নিষেধাজ্ঞা’ নামে নতুন এই নীতি ঘোষণা করা হয়েছে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কেবল যাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে, তারাই নন, কিছু কিছু ক্ষেত্রে তাদের পরিবারের সদস্যদের ওপরও এই বিধিনিষেধের প্রয়োগ দেখা যেতে পারে।
মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জামাল খাশোগিকে ২০১৮ সালে হত্যা করার অনুমতি দেন সউদী ক্রাউন প্রিন্স মুহাম্মদ বিন সালমান।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন ওই প্রতিবেদন প্রকাশ করে। তাতে আরো বলা হয়েছে, খাশোগিকে হত্যার পরিকল্পনাটি অনুমোদন দেন সউদী ক্রাউন প্রিন্স। যদিও সেই অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছেন তিনি।
ওই গোয়েন্দা প্রতিবেদন প্রকাশের পর পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন ‘খাশোগি নিষেধাজ্ঞা’ জারির ঘোষণা দেন। ভিসা নিষেধাজ্ঞার আওতায় তারাই পড়বেন যারা বিভিন্ন দেশের সরকারের হয়ে ভিন্নমতালম্বী দমনে মারাত্মক এবং বিচারবর্হিভূত কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকবেন।
গোয়েন্দা প্রতিবেদনে যুবরাজকে ভিন্নমতাবলম্বী সাংবাদিক খুনে দায়ী করা হলেও শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি তার ওপর কোনো নিষেধাজ্ঞা দেয়নি। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, সউদী ক্রাউন প্রিন্সের সঙ্গে যেন কাজের সম্পর্ক বজায় থাকে, তা নিশ্চিত করতেই তার ওপর কোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়নি বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন বাইডেন প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা। তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের নেওয়া পদক্ষেপের উদ্দেশ্য হচ্ছে সম্পর্কের পুনর্মূল্যায়ন, ফাটল ধরানো নয়। সূত্র: রয়টার্স

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ