Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ০৭ বৈশাখ ১৪২৮, ০৭ রমজান ১৪৪২ হিজরী

কেন্দ্রীয় বিএনপি নেত্রী নায়াব ইউসুফের সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ সরকারদলীয় লোকেরাই আমার গাড়ি বহরে হামলা করেছে

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৪:১৮ পিএম

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ রবিবার ফরিদপুর সদর থানার গেরদা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
এ নির্বাচনে ইউনিয়নের গেরদার বোকাইলের মোড়ে, বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণাকালে জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী নায়াব ইউসুফের গাড়ি বহরে হামলার ঘটনা ঘটে।
হামলাকারীরা নায়াব ইউসুফের গাড়ি লক্ষ্য করে ব্যাপক মারমুখী হয়ে ওঠে বলে প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ বিস্তর।
জানা গেছে, শুক্রবার বিকেলে গেরদার আব্দুল খালেক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী মো. আরিফ হোসেনের সমর্থনে আয়োজিত এক নির্বাচনী সভা শেষে সন্ধার পর নায়াব ইউসুফ বুকাইলের মোড় এলাকায় গণসংযোগে নামেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নায়াব ইউসুফের প্রচারণাকালে পাশের স্কুল মাঠে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীর পূর্বনির্ধারিত একটি নির্বাচনী সভার প্রস্তুতি চলছিল।
অল্প সময়ের ব্যবধানে ফরিদপুর হতে আওয়ামী লীগের জেলা নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হন। এরপরে নৌকার কর্মী সমর্থকরা সমাবেশস্থল ছেড়ে রাস্তায় চলে আসেন এবং জয়বাংলা শ্লোগান দিয়ে আকস্মিক নায়াব ইউসুফের গাড়িতে হামলা করে। এ অভিযোগ বিএনপি নেত্রী নায়াব ইউসুফের।
এসময় নায়াব ইউসুফের সাথে জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি মো. আব্দুল লতিফ মিয়া, মৎসজীবী দলের কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মো. সেলিম মিয়া, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক নেতা এমএম ইউসুফ, রুকসুর সাবেক ভিপি মো. সেলিম মিয়া, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি শাহরিয়ার শিথীল, বিএনপি নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান চৌধুরী পংকজ, কোতয়ালী থানা বিএনপিসাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান রঞ্জন, শহর বিএনপিসাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মিরাজ, মহিলা দলের নেত্রী নাজনীন আরা, বিএনপি নেতা শের শাহ, ছাত্রদল নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন রতন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এ ঘটনার পর শুক্রবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে ফরিদপুর প্রেসক্লাবে এক তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলনে নায়াব ইউসুফ বলেন, হামলাকারীরা জয় বাংলা শ্লোগান দিয়ে তার গাড়িতে আঘাত করতে থাকে। এতে সেখানে এক উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। তাঁর গাড়ির সামনে মোটর সাইকেল রেখে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা হয়।
তিনি বলেন, এ অবস্থায় সেখানে কর্তব্যরত কোতয়ালী থানার একজন এসআই ও সাদা পোষাকে কর্মরত ডিবি পুলিশের একজন কর্মকর্তা তাদের গাড়িটি নিরাপদে বের করে আনার ব্যবস্থা করেন। সেখান হতে ফিরে তিনি ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামানকে বিষয়টি তাকে অবহিত করেন।
ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, বিষয়টি জানতে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে। অপরাধ যেই করুক কারো প্রতি পক্ষপাতমুলক আচরণ করা হবে না। নির্বাচনে যাতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় থাকে সে ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এদিকে নায়াব ইউসুফ অভিযোগ করেন, গেরদায় ধানের শীষের নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে হুমকি দেয়া হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে ধানের শীষের পক্ষে কাজ করায় তিনজনের উপর হামলা করে আহত করা হয়েছে। এছাড়া নিজেরাই নৌকার নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর করে বিএনপি নেতাকর্মীদের মামলা হামলায় হয়রানীর চেষ্টা করছে। উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে লাখ লাখ টাকা বিলিবন্টন করা হচ্ছে। সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণভাবে এ নির্বাচন সম্পন্ন করার লক্ষ্যে প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগের সহায়তা কামনা করছেন বিএনপি নেত্রী নায়াব ইউসুফ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হামলা


আরও
আরও পড়ুন