Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭, ২৯ শাবান ১৪৪২ হিজরী

খাশোগি ইস্যুতে সউদীর সাথে সংহতি প্রকাশ পাকিস্তানের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৭:০৬ পিএম

সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে গ্রেপ্তার বা হত্যার অভিযানে সউদী ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান অনুমোদন ছিল বলে দাবি করে গত শুক্রবার প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা। এর একদিন পরে শনিবার পাকিস্তান বলেছে যে, তারা ‘এ ব্যাপারে সউদী প্রচেষ্টা’ ছিল বলে স্বীকৃতি দিয়েছে এবং তারা এ ঘটনায় সউদীর সাথে ‘সংহতি’ প্রকাশ করেছে।

ক্রাউন প্রিন্সের নীতির সমালোচনা করে সউদী সাংবাদিক জামাল খাশোগি মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টে কলাম লিখেছিলেন। ২০১৮ সালে ইস্তাম্বুলে সউদী কনস্যুলেটে তাকে হত্যা করা হয়। হত্যাকারীরা সউদী ক্রাউন প্রিন্সের সাথে সম্পর্কিত ছিল বলে অভিযোগ রয়েছে। তবে রিয়াদ এ ঘটনায় ক্রাউন প্রিন্সের কোনও সম্পৃক্ততা অস্বীকার করে। শুক্রবার মার্কিন জাতীয় গোয়েন্দা পরিচালকের কার্যালয়ের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘আমরা নিশ্চিত হয়েছি যে, সউদী আরবের ক্রাউন প্রিন্স মুহাম্মদ বিন সালমান তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সউদী সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে গ্রেফতার বা হত্যার জন্য একটি অভিযানের অনুমোদন দিয়েছিলেন।’

এ বিষয়ে শনিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র জাহিদ চৌধুরী এক বিবৃতিতে বলেছেন, “আমরা জামাল খাশোগি হত্যার বিষয়ে ‘মূল্যায়ন’ সম্বলিত মার্কিন প্রশাসনের ঘোষিত গোয়েন্দা প্রতিবেদন প্রকাশের বিষয়টি লক্ষ্য করেছি।” তিনি বলেন, “পররাষ্ট্র দফতরও লক্ষ করেছে যে সউদী সরকার খাশোগির হত্যাকে একটি ‘ঘৃণিত অপরাধ’ এবং ‘রাজ্যের আইন ও মূল্যবোধের প্রকাশ্য লঙ্ঘন’ বলে অভিহিত করেছে।” বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘সউদী সরকার আরও উল্লেখ করেছে যে দায়বদ্ধ ব্যক্তিদের যথাযথ তদন্ত, দোষী সাব্যস্ত এবং সাজা দেয়া হয়েছে এবং ন্যায়বিচার কার্যকর হয়েছে তা নিশ্চিত করার জন্য তারা আইনী ব্যবস্থার মধ্যে সম্ভাব্য সমস্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।”

মুখপাত্র জানান, পাকিস্তান এ বিষয়ে সউদী প্রচেষ্টাকে স্বীকৃতি দেয় এবং সউদী আরবের রাজ্যের সাথে সংহতি প্রকাশ করে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘পাকিস্তান আইন সম্পর্কিত শাসন, জাতীয় সার্বভৌমত্বের প্রতি শ্রদ্ধা, এবং সমস্ত রাষ্ট্রের নিজ নিজ সাংবিধানিক কাঠামো এবং আন্তর্জাতিক বাধ্যবাধকতা অনুসারে মানবাধিকার সুরক্ষা এবং প্রচারের উপর গুরুত্বারোপ করে।’ সূত্র: এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন