Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭, ২৮ শাবান ১৪৪২ হিজরী

এখলাছ ব্যতীত আমল পরিশুদ্ধ হয় না

পীর ছাহেব সোনাকান্দা

মো. হাবিবুর রহমান, দেবিদ্বার (কুমিল্লা) থেকে : | প্রকাশের সময় : ১ মার্চ, ২০২১, ১২:০০ এএম

ইলমে তাসাউফ ও তরিকতের লালন ও বিকাশ ক্ষেত্র কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী সোনাকান্দা দারুল হুদা দরবার শরীফের বার্ষিক ইছালে ছাওয়াব মাহফিল ঘিরে গোটা এলাকায় উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। দূর-দূরান্ত থেকে আগত লাখ লাখ আশেকীন, জাকেরীন, মুহিব্বীন, ভক্ত, মুরিদান ও মুসল্লিদের উপস্থিতিতে এক বিরল ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। থেমে থেমে আল্লাহু আল্লাহু জিকির, কালিমায়ে তয়্যিবার জিকির ও আল্লাহ প্রেমিকদের চোখের পানি এবং ইয়া রাসুলাল্লাহ ধ্বনিতে প্রকম্পিত হয়ে উঠে সোনাকান্দা দরবারসহ আশপাশের এলাকা। মাহফিলে প্রথমদিনের মতো গতকাল রোববার শেষদিনেও মাগরিব নামাজ শেষে দরবারের পীর আলহাজ মাওলানা প্রিন্সিপাল মাহমুদুর রহমান চার ত্বরিকার নিয়ম অনুযায়ী গুরুত্বপূর্ণ জিকিরের তালিম দেন। এর পর রাতব্যাপী চলছে ধর্মীয় আলোচনা ও আলেম ওলামায়ে কেরামগণের নুরানী তাকরির। মাহফিলে বয়ানকালে সোনাকান্দা দরবার শরীফের পীর ও বাংলাদেশ তা’লীমে হিযবুল্লাহর আমীর আলহাজ মাওলানা প্রিন্সিপাল মাহমুদুর রহমান বলেন, এখলাছ ব্যতীত আমল পরিশুদ্ধ হয়না। এখলাছের সাথে আমল করলে সেটি নেক আমলে পরিণত হয়। সর্বপ্রথম আমাদের নিয়ত ও এখলাছ পরিশুদ্ধ করতে হবে। তাহলেই সকল প্রকার আমল পরিশুদ্ধ ও নেক আমলে পরিণত হবে। অনেকেই এখলাছের কথা বলে ওয়াজ নছিহত করলেও বাস্তব জীবনে সম্পূর্ণ বিপরীতমুখী। বক্তব্যের সাথে জীবনের মিল থাকতে হবে। আমরা যারা ধর্মীয় আলোচনায় বক্তব্য রাখি, তাদেরও এখলাছমুখী হতে হবে। এখলাছ বিহীন আমল অন্তসারশূন্য। আমলের মধ্যে কোন রিয়া থাকতে পারবে না। আমল হবে শুধু আল্লাহ তা’য়ালাকে রাজি খুশি করানোর জন্য। লোক দেখানোর জন্য আমল করলে সেটিই হবে রিয়া। ফলে এখলাছকে পরিশুদ্ধ করে রিয়ামুক্ত আমলই আল্লাহ তা’য়ালার কাছে অধিকতর পছন্দনীয়।

মাহফিলে বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআই’র সাবেক সভাপতি আলহাজ ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন এমপি, প্রেসিডেন্টের প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ তমাল, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সরকার, কেন্দ্রিয় যুবলীগ সদস্য মোহাম্মদ ইসমাইল। বাংলাদেশ তা’লীমে হিযবুল্লাহর কেন্দ্রিয় মহাসচিব শায়খুল হাদীস মাওলানা মোতালেব হোসাইন সালেহীর উপস্থাপনায় মাহফিলে আরো বয়ান করেন নূর মোহাম্মদপুর দরবার শরীফের পীর মাওলানা প্রিন্সিপাল আবু তাহের মোহাম্মদ সালেহ উদ্দিন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের জাতীয় মুফাচ্ছির ড. আবু সালেহ পাটোয়ারি, সাবেক ভাইস-প্রিন্সিপাল মাওলানা বেলাল হোসেন আফসারী ও শরীফ হাবিবুর রহমান যুক্তিবাদী প্রমুখ।
বয়ানকালে মাওলানা মাহমুদুর রহমান আরো বলেন, ইতিহাস-গবেষকরা বহু পরীক্ষা-নিরীক্ষা, আলোচনা-গবেষণা ও পর্যালোচনা করে ঐক্যমত পোষণ করেছেন যে, রাজনৈতিক বিজয়ের দু’এক শতাব্দী পূর্বে থেকেই আরব বণিক, ধর্ম প্রচারক, সূফিসাধক, পীর-দরবেশ, ওলী-আউলিয়াদের মাধ্যমেই এ দেশে ইসলামের আবির্ভাব ঘটেছে। ইখতিয়ার উদ্দিন মোহাম্মদ বিন বখতিয়ার খিলজীর বাংলা বিজয়ের বহু পূর্বেই সূফি আরব বণিকদের দ্বারা এ দেশের আনাচে-কানাচে ইসলামের প্রচার হয়েছে। বলতে গেলে তারা যেন পূর্বে এসেই এ দেশে মুসলিম শাসনের ক্ষেত্র তৈরি করেছেন। বঙ্গ বিজয়ের ৩ শত বছর পূর্বে শায়খ আব্বাস বিন হামজা নিশাপুরী (র.) বাংলাদেশে ইসলাম প্রচার করে ৯০০ খ্রিস্টাব্দে ঢাকায় ইন্তেকাল করেন। এ থেকে বুঝা যায়, ইসলাম এ দেশের মাটির অতি গভীরে প্রোথিত। আর এর বীজ বপন করেছেন আউলিয়ায়ে কেরামগণ। তরীকা-তাসাউফের বিরোধীরা এ কথা ভুলে গেলে চলবে না। মানব সত্ত্বায় বিরাজমান কুরিপুগুলো চিনে এ গুলো বর্জন করার উপায় শিখতে হলে হক্কানী পীর মাশায়েখদের দরবারে যেতে হবে। সুরিপুগুলো চিনে এগুলো অর্জন করার পদ্ধতির সহজ শিক্ষা রয়েছে তাদের জীবন দর্শনে, ওয়াজে-নছিহতে ও কৃতকর্মে। তিনি প্রত্যেক মুসলমান অভিভাবককে তাদের সন্তানদের পবিত্র কোরআন-হাদীস শিক্ষাদান ও নামাজ পড়ার উপর গুরুত্বারোপ করতে হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আমল-পরিশুদ্ধ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ