Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ০৯ বৈশাখ ১৪২৮, ০৯ রমজান ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজে যাতায়াত

৩৫ বছরেও হয়নি সংস্কার

মেহেদি হাসান মুবিন, মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) থেকে | প্রকাশের সময় : ২ মার্চ, ২০২১, ১২:০২ এএম

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ দিয়ে প্রতিদিন চলাচল করছেন হাজারো মানুষ। যেকোনো সময় ব্রিজটি ধসে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। ব্রিজটির মাঝখানে গর্ত থাকায় যানচলাচলে মারাত্মক ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে। এ ছাড়াও ব্রিজের দু’পাশের রেলিংগুলো নড়বড়ে এবং অধিকাংশ ভেঙে যাওয়ার ফলে হাজারো মানুষ দুর্ভোগ নিয়ে চলাচল করছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার ভয়াং-চান্দুখালি সড়কের মজিদবাড়িয়া ইউয়িনের সুলতানাবাদ গ্রামের পায়রা নদীর শাখা পাচকরি খালের ওপর দিয়ে প্রায় ৩৫ বছর আগে নির্মিত হয় এই ব্রিজটি। এই ব্রিজটি মজিদবাড়িয়া ইউনিয়নের মজিদবাড়িয়া গ্রাম, তারাবুনিয়া, সুলতানাবাদ করমজা বুনিয়া গ্রামগুলোর প্রায় হাজারো মানুষ যাতায়াত করেন। অনেক পুরনো ব্রিজ হওয়ায় অনেক দিন থেকেই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে আছে। এর মধ্যে নতুন করে ব্রিজের মাঝখানে বড় আকারের একটি গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। এতে ব্রিজটি আরো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। স্থানীয়রা আশঙ্কা করছেন যেকোনো সময় ব্রিজটি খালের মধ্যে ধসে পড়তে পারে।
সুলতানাবাদ গ্রামের যুবক ইমরান হোসেন জানান, ব্রিজটি দীর্ঘদিন ধরে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে আছে। এর মধ্যে বড় আকারের গর্ত হয়েছে। এতে ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন মানুষ ও যানবাহন চলাচল করছে। অটোরিকশা চালক বাদল হাওলাদার জানান, ব্রিজটি অতিরিক্ত ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার কারণে গাড়ি উঠলেই বুকটা থরথর করে কেঁপে ওঠে এতে যাত্রীদের মধ্যে ও ভীতির সৃষ্টি হয়।
মজিদবাডড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম সরোয়ার কিসলু মিয়া জানান, আমি ব্রিজটি পরিদর্শন করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে ব্রিজটি সংস্কারের আশ্বস্থ করেছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী শেখ আজিম-উর রশিদ জানান, দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে ঠিকাদার নিয়োগের পরে নতুন করে ব্রিজটির নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন