Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ২ বৈশাখ ১৪২৮, ০২ রমজান ১৪৪২ হিজরী

বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজের ওপর আয়কর প্রত্যাহারের দাবি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ মার্চ, ২০২১, ১২:০০ এএম

আসন্ন বাজেটে মেডিকেল কলেজগুলোর উপর বিদ্যমান ১৫ শতাংশ আয়কর প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে দেশের বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোর সংগঠন প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ এসোসিয়েশন (বিপিএমসিএ)। গতকাল জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সঙ্গে প্রাক বাজেট আলোচনা সভায় এই দাবি জানায় সংগঠনটি।

দাবির পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করে বিপিএমসিএ সভাপতি এমএ মবিন খান বলেন, ‘বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলো মানসম্পন্ন স্বাস্থ্য সেবা ও চিকিৎসা শিক্ষা নিশ্চিত করছে। দেশের শিক্ষা ও চিকিৎসা সেবা খাতে অলাভজনক ও সেবামূলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। ২০১০ সালের আগ পর্যন্ত এ খাতে কোনো আয়কর আরোপ হয়নি। কিন্তু ২০১০ সালে প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোর ওপর ১৫ শতাংশ আয়কর ধার্য হয়েছে। অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোর ওপর থেকে তা রহিত করার জন্য আমরা সুপারিশ করছি।

করোনা মহামারি শুরুর পর সেবা অব্যাহত রেখে সব রোগীর চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি লেটেক্স ও ভিনাইল সার্জিক্যাল হ্যান্ড গ্লাভসের ওপর আরোপিত টোটাল ট্যাক্স ইনসিডেন্ট ৩৮ দশমিক ৪৭ শতাংশ মওকুফ করারও দাবি জানান। এছাড়া, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ব্যবহৃত ব্লাড ব্যাংক, রেফ্রিজারেটর, পেমেন্ট মনিটর, অ্যানেস্থেশিয়া ভেন্টিলেটর, আইসিইউ ভেন্টিলেটর আমদানির ক্ষেত্রে ভ্যাট ও ট্যাক্সে রেয়াত প্রদান, মেডিকেল কলেজের আমানতের উপর ব্যাংক সুদের কর অব্যাহতি, স্বাস্থ্য সেবা খাতের জন্য এ বছর আলাদা বাজেট প্রণয়ন এবং হাসপাতাল নির্মাণে ব্যবহৃত পণ্য আমদানিতে সব কর, শুল্ক বা আগাম আয়কর অব্যাহতির সুপারিশ করেছে বিপিএমসিএ।

এসব দাবি শুনে এনবিআর চেয়ারম্যান আবু মো. রহমাতুল মুনিম বলেন, স্বাস্থ্য খাতে আমাদের সবসময় সাপোর্ট ছিল। তবে অসাধু ব্যবসায়ীদের নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন থাকি। সবসময় অসাধু ব্যবসায়ীরা ভালো সুযোগের অবৈধ সুবিধা নেয়। ব্যবসার জন্য তারা আইনগত রাস্তা তৈরি করে। সেজন্য আমরা চাইলেও না অনেক কিছু দিতে পারি না। তিনি বলেন, ঢাকার বাইরে মফস্বল এলাকায় ভালো মানের হাসপাতাল করলে কর বেনিফিট দিতে পারি কি-না তা দেখব। আমরা চাই স্বাস্থ্য সেবা দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়ুক। এক প্রশ্নের জবাবে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, আপনারা নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন। অথচ ব্যাংক হিসাবে হিউজ অর্থ শো করে। এত অর্থ থাকলে তাকে আমরা নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন বলব কি-না। আর যদি অ্যাকাউন্টে প্রফিট না থাকে তাহলে এমনিতেই কর আসবে না।

সভায় অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষে ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও বিপিএমসিএ সভাপতি এমএ মুবিন, ইস্ট ওয়েস্ট মেডিকেল কলেজ ঢাকার চেয়ারম্যান ডা. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, পপুলার মেডিকেল কলেজের চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান, গ্রীন লাইফ মেডিকেল কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মো. মঈনুল আহসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রাজস্ব বোর্ডের পক্ষে আয়কর নীতির সদস্য মো. আলমগীর হোসেন, শুল্ক ও ভ্যাট প্রশাসন বিভাগের সদস্য মো. সাইফুল ইসলাম, এনবিআরের শুল্ক নীতি ও আইসিটি বিভাগের সদস্য সৈয়দ গোলাম কিবরীয়াসহ বাজেট সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বেসরকারি-মেডিক্যাল-কলেজ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ