Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭, ২৮ শাবান ১৪৪২ হিজরী

ভারতের কেন্দ্র ও রাজ্যের বিরোধে তিস্তা চুক্তি আটকে গেছে

সাংবাদিকদের পররাষ্ট্র সচিব

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:০০ এএম

তিস্তা চুক্তি নিয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকার কোনো সমঝোতায় আসতে পারেনি। একারণে তিস্তা চুক্তি আটকে আছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন। গতকাল শুক্রবার খাগড়াছড়ির রামগড়ে বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সেতু পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।
এ সময তিনি আরো বলেন, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকার কোনো সমঝোতায় আসতে পারেনি। তবে আমরা আশাবাদী। আগামী ১৬ মার্চ ভারতের পানিসম্পদ সচিবের সাথে বৈঠক করার কথা রয়েছে। এরপর দু’দেশের পানিসম্পদ মন্ত্রীদের বৈঠক হবে। আমরা আশাবাদী বৈঠকগুলো হলে তিস্তাসহ ছয় নদীর ব্যাপারে সমঝোতা হবে। উদ্বোধনের অপেক্ষায় থাকা রামগড়ের মহামুনিতে ফেনী নদীর ওপরে নির্মিত মৈত্রী সেতু-১ পরিদর্শনে এসে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও বাংলাদেশ-ভারতের ক‚টনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আগামী ২৬ মার্চ বাংলাদেশের উৎসবে শামিল হবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তখন আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের ফেনী নদীর ওপরে নির্মিত বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী-১ সেতুটি উদ্বোধন করবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি আরো বলেন, সেতুটির উদ্বোধন হলেও সেতুর কার্যক্রমে আরো আনুষ্ঠানিকতা রয়ে গেছে। সেতুটির ফলে দু’দেশের সম্পর্কে অনেক অগ্রগতি হবে।
উল্লেখ, ২০১৫ সালের ৬ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সেতু-১ নামে ফেনী নদীর ওপর নির্মিত সেতুটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ২০১৭ সালের ২৭ অক্টোবর থেকে মৈত্রী সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়। সেতুর কাজ শেষ হয়েছে, এখন উদ্বোধনের পালা।



 

Show all comments
  • Mohammed Shah Alam Khan ৬ মার্চ, ২০২১, ১১:০৭ এএম says : 0
    প্রকৃতপক্ষে ভারত বাংলাদেশকে তিস্তার পানি দিতে চায়না তাই একটা ফালতু কেন্দ্র ও রাজ্যের বিরোধের কথা বলে কেন্দ্র তাল বাহনা করছে এটাই এদের বিভিন্ন কথায় ফুটে উঠেছে। আল্লাহ্‌ আমাদেরকে ভারতের চালবাজি থেকে রক্ষা করুন। আমিন
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ